বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা ২০২২: ভর্তির যোগ্যতা ও পরীক্ষার সময়সূচী

 


বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২: ভর্তি আবেদনের যোগ্যতা. অনলাইন আবেদন ও পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ভর্তি পরীক্ষা ২০২২: BUET Admission 2022

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি (সার্কুলার) ১৪ এপ্রিল ভর্তি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে প্রাক-নির্বাচনী (বাছাই) ও চুড়ান্ত পরীক্ষার সময়সূচী প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়। বুয়েট ভর্তির প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ৪ জুন।


এবার প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন ২০ হাজার শিক্ষার্থী। প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রথম ৬ হাজার জনকে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে।

১৮ জুন ২০২২ খ্রি. তারিখে বুয়েট ক্যাম্পাসে চূড়ান্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বুয়েটের শিক্ষা পরিষদের (একাডেমিক কাউন্সিল) এক সভায়, বুয়েট ভর্তি ভর্তি পরীক্ষার চুড়ান্ত সময়সূচী প্রকাশ করা হয়।

২০২২ সালের বুয়েট ভর্তির আবেদন অনলাইনে করতে হবে। আবেদন, প্রাক-নির্বাচনী ও চুড়ান্ত সময়সূচির তথ্য, নিচের সংযুক্ত বিজ্ঞপ্তি থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।


বুয়েট ভর্তির পরীক্ষার সময়সূচী

বুয়েট ভর্তি আবেদন ও ভর্তির সকল তথ্য পাওয়ার ঠিকানা: http://ugadmission.buet.ac.bd

ভর্তির অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ ও সাবমিট শুরু ১৬ এপ্রিল শনিবার সকাল ১০টা থেকে।


আবেদনপত্র পূরণ ও সাবমিট শেষ হবে ২৫ এপ্রিল সোমবার বিকেল ৩টায়।

মোবাইল বা অনলাইন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আবেদন ফি প্রদান শেষ হবে ২৬ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকাল ৩টায়।

২০২২ সালে অনষ্ঠিত বুয়েট ভর্তির প্রাক-নির্বাচনী (বাছাই) পরীক্ষা ৪ জুন অনুষ্ঠিত হবে।

বাছাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের চুড়ান্ত ভর্তি পরীক্ষা ১৮ জুন ২০২২ খ্রি. তারিখে অনুষ্ঠিত হবে।


২০ হাজার শিক্ষার্থী প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এরপর প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রথম ৬ হাজার জনকে চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে।

বুয়েট ক্যাম্পাসে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। বুয়েটের ভর্তির চূড়ান্ত পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্তদের (মেধাতালিকার ভিত্তিতে) ভর্তি করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল, পুরা-প্রকৌশল, যন্ত্রকৌশল, তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের অধীনে ১২টি বিভাগে সর্বমোট ১ হাজার ২৭৫টি আসনে ভর্তি করা হবে।


আরো জানুন: ডেন্টাল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১-২০২২ – নোটিশ, আবেদন যোগ্যতা ও আবেদন পদ্ধতি

বুয়েট ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন

২০১৮ বা ২০১৯ সালের মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় এবং ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ।

২০১৮ সালের মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় এবং ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষার সংশোধিত ফলাফল ৩ মে ২০২১ তারিখের পরে শিক্ষা বোর্ড থেকে প্রকাশিত হয়েছে।


২০১৭ সালের নভেম্বর বা তার পরে GCE O লেভেল এবং ২০২০ সালের নভেম্বর থেকে ২০২১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত  GCE A
লেভেল পরীক্ষার ফলাফল প্রাপ্ত হয়েছেন।

তবে যে সকল ছাত্র-ছাত্রী ইতোপূর্বে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন অথবা অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেছেন তারা এই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে বুয়েট ভর্তির পরীক্ষায় অংশগ্রহনের যোগ্যতা

২০২২ সালের বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে বিস্তারিত ভর্তি যোগ্যতা দেওয়া আছে। আমরা এখানে সংক্ষেপে ভর্তির যোগ্যতা তুলে ধরেছি।

বিস্তারিত জানতে নিচের যুক্ত ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ভালোভাবে পড়ে দেখুন।

প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে গেড পদ্ধতিতে বিজ্ঞান বিভাগে (গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন সহ) ৫.০০ এর ক্ষেলে ন্যূনতম জিপিএ ৪.০০ পেয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট/দাখিল/সমমান পরীক্ষায় পাশ করতে হবে।


অথবা বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড পেয়ে পাশ করতে হবে।

প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে উচ্চ মাধ্যমিক/আলীম/ সমমানের পরীক্ষায় গেড পদ্ধতিতে ৫.০০ এর স্কেলে জিপিএ ৫.০০ পাশ করে হবে।


গণিত বিষয়ে ২০০ নম্বরের মধ্যে ন্যুনতম ১৭০ নম্বর এবং পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয় সমূহে ৪০০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম মোট ৩৭২ নম্বর পেয়ে উচ্চ মাধ্যমিক/ আলীম/ সমমানের পরীক্ষায় পাশ করতে হবে।

অথবা বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড/ নম্বর পেয়ে পাশ করতে হবে।

২০১৮ সালের মাধ্যমিক ও ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণদের ভর্তির যোগ্যতা

যে সব প্রার্থী ২০১৮ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষায় এবং ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ হয়েছেন কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় তাদের সংশোধিত ফলাফল ৩ মে ২০২১ তারিখের পরে প্রকাশিত হয়েছে তাদের যোগ্যতা নিম্নরূপ-

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে উচ্চ মাধ্যমিক/আলীম/ সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিনটি বিষয়ে গ্রেড পদ্ধতিতে ৫.০০ এর ক্ষেলে জিপিএ ৫.০০ পেয়ে পাশ করতে হবে।

মাধ্যমিক/ দাখিল/ সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিনটি বিষয়ে ৩০০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম ২৭০ নম্বর পেয়ে মাধ্যমিক/ দাখিল/ সমমানের পরীক্ষায় পাশ করতে হবে।


অথবা বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গেড/ নম্বর পেয়ে পাশ করতে হবে ।

বুয়েট প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বাছাই

সকল সঠিক আবেদনকারীর মধ্য হতে উপরে উল্লেখিত নির্ধারিত নম্বরের ভিত্তিতে বাছাই করে ১ম থেকে ২০,০০০ তম পর্যন্ত সকল
আবেদনকারীকে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়া হবে।

এই বাছাইয়ের জন্য যথাক্রমে আবেদনকারীর উচ্চ মাধ্যমিক সমমান পরীক্ষায় পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয় দুইটিতে প্রাপ্ত মোট নম্বর এবং পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরকে অগ্রাধিকারের ক্রম হিসাবে বিবেচনা করা হবে।

ইংরেজী মাধ্যমের শিক্ষার্থীদেরও সমমানের গ্রেড ও নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

এবিষয়ে বিস্তারিত জানুন নিচে সংযুক্ত ভর্তি বিজ্ঞপ্তি থেকে।

বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার ফি

মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ‘ক’ ও ‘খ’ গ্রুপের জন্য যথাক্রমে ১০০০/= ও ১২০০/= টাকা, প্রতিটি আবেদনকারীকে ভর্তির পরীক্ষার জন্য ফি প্রদান করতে হবে।

ক-গ্রুপের প্রকৌশল ও বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ) আবেদন, প্রাক-নির্বাচনী ও মূল ভর্তি বাবদ ১ হাজার টাকা অনলাইনে ফি প্রদান করতে হবে।


খ-গ্রুপের প্রকৌশল ও বিভাগসমূহ, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ ও স্থাপত্য বিভাগে মোট ১২০০ টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ফি দিয়ে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

বুয়েট পরীক্ষা ২০২২: মোট আসন সংখ্য ও কোটা

এবারে মোট ১ হাজার ২৭৫ আসনে বুয়েট স্নাতক ১ম বর্ষে ভর্তি করা হবে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য নৃগোষ্ঠীর জন্য ৪টি আসন সংরক্ষিত থাকবে।

বুয়েট ভর্তির বাছাই ও চুড়ান্ত পরীক্ষার বিষয়সমূহ, পাঠ্যসূচী ও নম্বর বণ্টন

দুই ধাপের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথমে এমসিকিউ (MCQ) টাইপ ১০০ নম্বরের ১ ঘন্টাব্যাপী প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২০২১ সালের সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচী অনুযায়ী উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির গণিত, পদার্থ ও রসায়ন বিষয়ে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হবে।

দ্বিতীয় ধাপের মুল ভর্তি (চুড়ান্ত) পরীক্ষায় ক-গ্রুপের জন্য মোট ৪০০ নম্বর ও খ-গ্রুপের জন্য মোট (৪০০+২৫০)=৬৫০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এখানেও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির গণিত, পদার্থ ও রসায়ন বিষয়ে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার আরো তথ্য জানুন, নিচের সংযুক্ত বুয়েট BUET Admission Prospectus থেকে। ২ নম্বর অনুচ্ছেদ এর ২.১ থেকে ২.৪ নম্বর উপ-অনুচ্ছেদে বর্ণিত ভর্তি পরীক্ষার পাঠ্যসূচী থেকে।

বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা ২০২২ এর বিজ্ঞপ্তি পিডিএফ (সার্কুলার)

সতর্কতা:  ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের বুয়েট ভর্তি সার্কুলার প্রকাশ করা হয়েছে। ভর্তি আবেদন করার আগে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ভালোভাবে পড়ে নিন।

নিচের অনুচ্ছেদে ভর্তির সার্কুলারের প্রথম থেকে কয়েক পাতা যুক্ত করা হলো। ১৫ পাতার মূল ভর্তি প্রসপেকটাস সংগ্রহ করতে -

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad

Ads Area