Last update
Loading...

মুসলিমদের ওপর হামলা চালাতে যুক্তরাজ্যে চিঠি বিলি!

যুক্তরাজ্যে মুসলমানদের ওপর হামলার আহ্বান জানিয়ে ‘লিফলেট’ বিলি করেছে কে বা কারা। আগামী ৩ এপ্রিলকে ‘মুসলিম শাস্তির দিবস’ (পানিশ অ্যা মুসলিম ডে) হিসেবে পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে ওই বেনামি চিঠিতে। দেশটির অনেক শহরে এমন চিঠি বিলি করা হয়েছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতারা বলছেন, চরম বিদ্বেষপূর্ণ এই চিঠি প্রেরণের ঘটনায় মুসলিম সম্প্রদায় আতঙ্কিত। গণহারে বেনামি এই চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে তাঁদের ধারণা। পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাঠানো ওই চিঠিতে প্রেরকের বিষয়ে কিছু উল্লেখ নেই। প্রতিটি চিঠিতে একটি খঞ্জরের ছবি আছে। গত শুক্রবার লন্ডনের দুজন বাসিন্দা প্রথম এমন ধরনের চিঠি পান বলে দেশটির বিভিন্ন গণমাধ্যমে জানানো হয়। গতকাল দেশের আরও অনেক শহরে এমন চিঠি পাওয়ার অভিযোগ আসতে থাকে। লন্ডন, ব্রাডফোর্ড, ইয়র্কশায়ার ও মিডল্যান্ডসের পুলিশ এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছে বলে স্বীকার করেছে। ইয়র্কশায়ার পুলিশ জানায়, তারা এক দিনে ছয়টি অভিযোগ পেয়েছে। ইতিমধ্যে পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিট এর তদন্ত শুরু করছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ৩ এপ্রিল মুসলিমদের ওপর বিভিন্ন ধরনের হামলা চালানো হবে। নারীদের হিজাব টেনে খুলে ফেলা, গালাগাল দেওয়া, শারীরিক আঘাত, এমনকি অ্যাসিড ছুড়ে মারার কথাও উল্লেখ রয়েছে এতে। এসব হামলা চালালে হামলাকারী বিশেষ ‘স্কোর’ পাবে।
হামলার ধরন অনুযায়ী হামলাকারী ওই পয়েন্ট পাবে। ব্রাডফোর্ডের কাউন্সিলর রিয়াজ আহমদ তাঁর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ঠিকানায় ওই চিঠি পেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘চিঠিতে কোনো প্রাপকের নাম উল্লেখ করা নেই। মনে হচ্ছে, গণহারে এই চিঠি পাঠানো হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, অনেকে হয়তো এটাকে রূঢ় রসিকতা হিসেবে ভাবতে পারেন। কিন্তু তাঁর কাছে এটা চরম আতঙ্কের। যুক্তরাজ্যের মুসলিমবিদ্বেষী ঘটনাগুলো নজরদারি করে ‘টেল মামা’ নামে একটি দাতব্য সংস্থা। তারাই প্রথম এমন চিঠির বিষয়ে পুলিশকে জানায়। সংস্থাটির পরিচালক ইমাম আতা বিবিসিকে বলেন, ‘এ ঘটনা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে চরম ভয়ের উদ্রেক করেছে। লোকজন জানতে চাচ্ছে তারা রাস্তায় শিশু ও পরিবার নিয়ে নিরাপদ কি না। আমরা তাদের শান্ত থাকতে বলেছি। এ ধরনের চিঠি পেলে পুলিশকে জানানোর পরামর্শ দিয়েছি।’ লেবার পার্টির এমপি নাজ শাহ এক টুইট বার্তায় জানান, তাঁর নির্বাচনী এলাকার (ব্রাডফোর্ড ওয়েস্ট) দুজন বাসিন্দা একই রকম চিঠি পাওয়ার বিষয়ে অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন।

0 comments:

Post a Comment