Last update
Loading...

ট্রাম্পের সম্মতিতে নিশ্চুপ কিম

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার ব্যাপারে উত্তর কোরিয়ার দেয়ার প্রস্তাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্মতির পর পিয়ংইয়ংয়ের পক্ষ থেকে এখনও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। এখনও নিশ্চুপ রয়েছেন সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন। দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা এমনটাই দাবি করেছেন। এদিকে সিআইএ প্রধান বলেছেন, সব ধরনের ঝুঁকি মেনেই কিমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ট্রাম্প। কিমের দেয়া আলোচনার প্রস্তাবে গত শুক্রবার সম্মতি জ্ঞাপন করেন ট্রাম্প। গত সপ্তাহে ওয়াশিংটন সফররত দক্ষিণ কোরিয়ার একটি প্রতিনিধি দল ঘোষণা দিয়ে বলেন, মে মাসের শেষের দিকে ট্রাম্প ও কিম বৈঠকে বসবেন। সংশ্লিষ্ট দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে বিশ্লেষকরা একে বড় ধরনের অগ্রগতি বলে অভিহিত করেন। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও একে স্বাগত জানায়। বিবিসি জানায়, পরিকল্পিত এ আলোচনার বিস্তারিত এখনও অস্পষ্টই রয়ে গেছে।
কেননা আলোচনার বিষয়বস্তু ও স্থানের ব্যাপারে এখনও কোনো অগ্রগতি হয়নি। দক্ষিণ কোরিয়ার একত্রীকরণ মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র সোমবার এক বিবৃতিতে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ বৈঠকের ব্যাপারে পিয়ংইয়ং কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো আনুষ্ঠানিক জবাব পাইনি। আমার মনে হচ্ছে, তারা বিষয়টি নিয়ে সতর্কতার সঙ্গে এগোচ্ছে এবং নিজেদের অবস্থান জানানোয় তাদের সময়ের দরকার।’ এদিকে কিমের সঙ্গে সম্ভাব্য এ বৈঠক নিয়ে ট্রাম্প অভাবনীয় সফলতার আশা করলেও সমালোচকরা একে ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছে। তবে ফক্স নিউজকে এক সাক্ষাৎকারে সিআইএ পরিচালক পম্পেও বলেছেন, ঝুঁকির ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট অবগত। তিনি সংকট নিরসনেই সেখানে যাচ্ছেন। ঝুঁকি মেনে নিয়েই কিমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তিনি। এখন পর্যন্ত কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট উত্তর কোরীয় নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেননি। ট্রাম্প বলেছেন, ওই বৈঠকে ‘বিশ্বের জন্য শ্রেষ্ঠ চুক্তি’ হতে যাচ্ছে। কিন্তু সমালোচকরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, যদি সংলাপ ব্যর্থ হয়ে তাহলে দুই দেশের মধ্যে আগের চেয়েও খারাপ অবস্থা তৈরি হবে।

0 comments:

Post a Comment