Last update
Loading...

বিমান দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া রণজিত বললেন ‘আমি ভাগ্যবান’

বিমান দূর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া ভাগ্যবান যাত্রী অশিষ রণজিত এখন থাপাথালি ভিত্তিক নরভিক ইন্টারন্যাশনাল হসপিটালের বিছানায় শুয়ে ব্যাথায় কাতরাচ্ছেন। তিনিসহ নেপালের ট্রাভেল এজেন্টদের একটি গ্রুপ একটি সম্মাননা অনুষ্ঠান শেষে ঢাকা থেকে নেপালে ফিরছিলেন। ত্রিভুবন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে সোমবার বিকালে বিমান দুর্ঘটনায় বেঁচে থাকার ব্যাপারে অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি বলেন- ‘আমি ভাগ্যবান’। রণজিতের পাশে ছিল তার আত্তিয় স্বজন ও শুভাকাঙ্খি, তারা পরস্পরকে আলিঙ্গন করছিলেন এবং তাকে রক্ষা করার জন্য স্রষ্টাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছিলেন।
এই হাসপাতালে বিমান দুর্ঘটনায় প্রাণে বেঁচে যাওয়া পাঁচজনের চিকিৎসা চলছিল। স্বজন ও শুভাকাঙ্খিদের পদচারণায় কোলাহল পূর্ণ ছিল হাসপাতালটি। রণজিতের ভাই আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন- ‘আমি বিমান দুর্ঘটনার সংবাদ শুনে খুবই উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত ছিলাম। কিন্তু এখন আমার অনুভূতি প্রকাশ করার মতো ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না।’ রণজিত নেপালের ১২টি ট্রাবেল এজেন্সির অপারেটরদের সাথে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানে করে ঢাকা থেকে কাঠমুন্ডুতে ফিরছিলেন। এই ১২ জন ট্রাভেল এজেন্টকে ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানে পুরস্কৃত করা হয়েছিল। নামাস্তে এভিয়েশন ট্রাবেল সেরা এজেন্সি হিসেবে আমন্ত্রিত ছিল। কাঠমন্ডুর অনুপ ওঝা জানিয়েছেন- বিমান দূর্ঘটনার কারণে একদল ট্রাভেল এজেন্টের পুরস্কার ও স্বীকৃতি পাবার অনুষ্ঠানের আনন্দ শেষ হয়ে গেছে।

0 comments:

Post a Comment