Last update
Loading...

জাহাজের জন্য ১৮ দিন অপেক্ষা by মাসুদ মিলাদ

•১৮ দিন পর জাহাজ বন্দরের জেটিতে ভেড়ানো হয়।
•২১৮টি প্রতিষ্ঠানের পণ্য বুঝে পেতে দেরি হয়।
শ্রীলঙ্কার কলম্বো বন্দর থেকে ‘এমভি থরস্কাই’ নামের একটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরের জলসীমায় পৌঁছায় গত ৩১ জানুয়ারি। ১৮ দিন পর গতকাল রোববার জাহাজটি বন্দরের জেটিতে ভেড়ানো হয়। ফলে পণ্য হাতে পেতে দেরি হয় দেশের ২১৮টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান ও আমদানিকারকের। বন্দরের জাহাজজটে সাধারণত চার-পাঁচ দিন দেরিতে পণ্য হাতে পান ব্যবসায়ীরা। তবে এবার বন্দরের জাহাজজটে নয়, সিঙ্গাপুরভিত্তিক একটি জাহাজ কোম্পানির বাংলাদেশের এজেন্সি পরিচালনা কাজ হস্তান্তর নিয়ে জটিলতায় এত দিন জাহাজটি জেটিতে ভেড়ানো হয়নি। ঠিক সময়ে কাঁচামাল হাতে না পাওয়ায় কারখানায় উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। এমভি থরস্কাইতে করে ৩০টি কনটেইনারে ভিয়েতনাম থেকে সিদ্ধ চাল আমদানি করেছে বিএসএম গ্রুপ। একই গ্রুপের মডার্ন পলি ইন্ডাস্ট্রিজের ৩০ কনটেইনার কাঁচামালও রয়েছে জাহাজটিতে। জানতে চাইলে বিএসএম গ্রুপের চেয়ারম্যান আবুল বশর চৌধুরী বলেন, সময়মতো কাঁচামাল হাতে না পেলে উৎপাদন ব্যাহত হয় কারখানায়। ভারত থেকে ওষুধের কাঁচামাল আমদানি করেছে চট্টগ্রামের অ্যালবিয়ন ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড। গ্রুপের চেয়ারম্যান রইসুল উদ্দিন বলেন, কাঁচামাল হাতে পেতে সময় লাগায় উৎপাদনে ব্যাঘাত হচ্ছিল। এই দুটি কোম্পানির মতো ইউনিলিভার, স্কয়ার গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপ, বেক্সিমকো গ্রুপ, নাভানা, প্রাণ-আরএফএল, আবুল খায়ের গ্রুপ, পারটেক্স, পিএইচপি ফ্যামিলি, জিপিএইচ, গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন, যমুনা গ্রুপ, বার্জার পেইন্টস, গ্রেটওয়াল সিরামিক, এনভয় টেক্সটাইলসহ ২১৮ প্রতিষ্ঠানের পণ্য হাতে পেতে স্বাভাবিকের চেয়ে তিন গুণ সময় লেগেছে। এজেন্সি পরিচালনা হস্তান্তর নিয়ে যে দুটি প্রতিষ্ঠানের দ্বন্দ্ব চলছে তার একটি হলো এসএইচআর গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান মেসার্স সি মেরিন শিপিং লাইনস লিমিটেড। এই গ্রুপের চেয়ারম্যান শেখ হাফিজুর রহমান। অপরদিকে মার্কো শিপিং কোম্পানি হলো কর্ণফুলী গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। এই গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী। সিঙ্গাপুরভিত্তিক ফার শিপিং লাইনস লিমিটেডের বাংলাদেশের এজেন্ট ছিল সি মেরিন।
৩১ জানুয়ারি সি মেরিন শিপিং লাইনস লিমিটেডের সঙ্গে ফার শিপিং কোম্পানির এজেন্সি পরিচালনা চুক্তি শেষ হয়। এরপরই বিদেশি কোম্পানিটি সি মেরিনকে বাদ দিয়ে মার্কো শিপিংকে এজেন্সি পরিচালনার জন্য নিয়োগ দেয়। নিয়োগ পাওয়ার পর ফার শিপিংয়ের পক্ষে বন্দরে আসা জাহাজের কাজ করার অনুমতি চেয়ে চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে মার্কো শিপিং। নিয়মানুযায়ী, এজেন্সি হস্তান্তর করতে হলে আগের কোম্পানির সঙ্গে দেনা-পাওনা পরিশোধের সমঝোতা করতে হয়। এরপর কাস্টমস কর্তৃপক্ষ দুই পক্ষের উপস্থিতিতে যৌথ ঘোষণাপত্র নিয়ে নতুন প্রতিষ্ঠানকে এজেন্সি পরিচালনার অনুমতি দেয়। এই নিয়মানুযায়ী, কাস্টমস কর্তৃপক্ষ যৌথ ঘোষণাপত্র প্রদানের জন্য চিঠি দেয় দুই পক্ষকেই। চিঠি পেয়ে সি মেরিন শিপিং লাইনস লিমিটেড মার্কো শিপিং কোম্পানির সঙ্গে বৈঠকে আগ্রহী নয় বলে কাস্টমস কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেয়। এ অবস্থায় ফার শিপিং কোম্পানিটির পক্ষে অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের দায়দেনা গ্রহণসংক্রান্ত অঙ্গীকারনামা কাস্টমস কর্তৃপক্ষকে প্রদান করে মার্কো শিপিং কোম্পানি। ১৩ ফেব্রুয়ারি ফার শিপিং লাইনস প্রাইভেট লিমিটেড, সিঙ্গাপুরের পক্ষে বন্দরে সাময়িকভাবে কাজ করার জন্য মার্কো শিপিংকে শর্ত সাপেক্ষে অনুমতি প্রদান করে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এরপর পাল্টা চিঠি দিয়ে এই অনুমতির আদেশ স্থগিত করার আবেদন জানায় সি মেরিন। এরপর বন্দর কর্তৃপক্ষও অনুমতি দেয় মার্কো শিপিংকে। বন্দরসচিব ওমর ফারুক গতকাল বলেন, এজেন্সি হস্তান্তর নিয়ে কাস্টমস অনুমোদনসহ আনুষ্ঠানিকতা শেষ করার পর এমভি থরস্কাই জাহাজটি ভেড়ানো হয়েছে।

0 comments:

Post a Comment