Last update
Loading...

টয়লেট পেপার নিয়ে হুলুস্থুল

তাইওয়ানে টয়লেট পেপার নিয়ে হুলুস্থুল বেধে গেছে। শিগগির দাম বাড়ছে—এমন কথা ছড়িয়ে পড়ার পর লোকজন ধুমছে টয়লেট পেপার কিনছে। দোকানদারেরা সামাজিক মাধ্যমে টয়লেট পেপারের ফাঁকা তাকের ছবি পোস্ট করছেন। ছবির মর্মার্থ—ওই সব তাকে টয়লেট পেপার সাজানো ছিল। কিন্তু এখন তা ফাঁকা।
তাইওয়ানের উৎপাদনকারীরা খুচরা বিক্রেতাদের সতর্ক করেছে যে আগামী মাসে টয়লেট পেপারের দাম ১০ থেকে ৩০ শতাংশ বাড়তে পারে। এরপরই টয়লেট পেপার নিয়ে হুলুস্থুল শুরু। কিছু দোকানদার জানিয়েছেন, তাঁরা ইতিমধ্যে বিপুল পরিমাণ টয়লেট পেপার কিনে রেখেছেন। তাঁদের আশঙ্কা—চাহিদার কারণে বাজারে টয়লেট পেপার ফুরিয়ে যেতে পারে। তাইওয়ানের অর্থবিষয়ক মন্ত্রণালয় বলছে, টয়লেট পেপারের দাম দিন দিন বাড়ছে। কারণ, টয়লেট পেপারের কাঁচামালের দাম বৈশ্বিকভাবেই ঊর্ধ্বমুখী। ব্যবসায়ীরা বলছেন, টয়লেট পেপারের দাম বেড়ে যাওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে। তার মধ্যে কানাডায় দাবানল এবং ব্রাজিলে উৎপাদন ব্যাহত হওয়া দাম বাড়ার অন্যতম কারণ। তাইওয়ানের অন্যতম বৃহত্তম টয়লেট পেপার সরবরাহকারী ওয়াইএফওয়াইয়ের ভাষ্য, পরিস্থিতি বাজে। মণ্ডের দাম হু হু করে বাড়ছে। প্যাকিং ও পরিবহন খরচও বাড়ছে। অনেক দোকানদার জানিয়েছেন, চাহিদার কারণে গত রোববারই তাঁদের দোকানের টয়লেট পেপারের তাক ফাঁকা হয়ে গেছে।
তাইওয়ানের বৃহত্তম হোম শপিং চ্যানেল ইটি মল জানিয়েছে, তাদের বিক্রি হওয়া শীর্ষ ২০টি আইটেমের মধ্যে ৬টিই টয়লেট পেপার। সাধারণ সময়ের চেয়ে টয়লেট পেপারের চাহিদা ১০ গুণ বেশি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দোকানদারদের আতঙ্কিত না হতে বলা হয়েছে। টয়লেট পেপার নিয়ে সৃষ্ট অস্থিরতার বিষয়ে অবগত আছে তাইওয়ানের সরকার। তারা এ ব্যাপারে তৎপর হয়েছে। দাম বাড়ার বিষয়ে সরকার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। তাইওয়ানের ভোক্তা সুরক্ষা বিভাগ বলেছে, মধ্য মার্চ নাগাদ টয়লেট পেপারের দাম বাড়বে না বলে তারা চারটি বড় খুচরা বিক্রেতাদের কাছ থেকে নিশ্চয়তা পেয়েছে। এর আগে দাম বাড়লে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

0 comments:

Post a Comment