Last update
Loading...

‘এমন মার মারব, খুঁজে পাওয়া যাবে না’

'এমন মার মারব, খুঁজে পাওয়া যাবে না' এভাবেই আস্ফালন করছে দুই যুবক। দুই যুবকের সামনে কম্পিউটার নিয়ে চুপ করে বসে আছেন এক মাঝবয়সী ভদ্রলোক। হুমকি আর ধমকের মধ্যেই আচমকা ডান দিক থেকে এগিয়ে আসা একটি হাত উল্টে দিল কম্পিউটারের কিবোর্ড। মাঝবয়সী ভদ্রলোক তখনও চুপ করে বসে আছে। সম্প্রতি প্রকাশিত একটি ভিডিওতে এমন দৃশ্যই দেখা যাচ্ছে। গত ৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতার রাজাবাজার বিজ্ঞান কলেজের কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক ভাস্কর দাসকে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ নেতা গৌরব দত্ত মুস্তাফি সমানে চড়থাপ্পড় মেরেছেন, নানা ভাবে শারীরিক নির্যাতন করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার। ভাস্করের অভিযোগ, ফেল করা শিক্ষার্থীদের পাস করিয়ে দেওয়ার দাবিতে এভাবেই তাকে হয়রানি করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতারা। ওই শিক্ষককে মারপিটও করা হয়। প্রকাশিত ভিডিও দেখাচ্ছে, গৌরব এক সঙ্গীকে নিয়ে সেদিন চড়াও হয়েছিলেন ভাস্কর বাবুর ওপরে। ভাস্কর জানিয়েছে,
এটি সেই ঘটনার ভিডিও। যেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনি বসে আছেন নিজের দফতরে। আর অভিযুক্ত গৌরব এবং তার সঙ্গী তাকে সমানে শাসিয়ে চলেছেন। তিনি বলেন, ‘ভিডিওতে যা দেখা যাচ্ছে, তার আগেই গৌরব তার বা গালে থাপ্পড় মারেন। শাসানি চলতে চলতেই মারেন আরও বেশ কয়েকটি চড়। গত মঙ্গলবারের ওই শিক্ষককে নিগ্রহের ঘটনা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। ভাস্কর বৃহস্পতিবার আমহার্স্ট থানায় গৌরবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। জামিন-অযোগ্য ধারায় অভিযোগ আনা সত্ত্বেও ওই ছাত্রনেতাকে গ্রেফতার করা হয়নি। আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়ে যান গৌরব। শুক্রবার কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটে বিষয়টি ওঠার কথা। তার আগে বৃহস্পতিবার এই বিষয়ে রাজাবাজার সায়েন্স কলেজে প্রতিবাদসভার ডাক দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন কুটা।

0 comments:

Post a Comment