Last update
Loading...

শীতে পায়ের যত্ন

শীতকালে যে কোনো মানুষেরই পায়ের পাতার চামড়া রুক্ষ হয়ে পড়ে এবং সেই সঙ্গে পায়ের গোড়ালি দুটি ফাটতে শুরু করে। অধিকাংশ মানুষের এ সমস্যা শীতকালেই বেশি হয়, অনেকের সারা বছরই হয়। সাধারণত অযত্ন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভাবে পা ফাটে। কখনও ত্বকের জমতে থাকা আর্দ্রতার কারণে হতে পারে। পুরো শরীরের মধ্যে পা ও এর তলাটাই সবচেয়ে শুষ্ক। কেননা দেহের অন্যত্র ত্বকের মাঝে তৈল গ্রন্থি থাকলেও পায়ের তালুতে তা নেই। কেবল আছে ঘর্মগ্রন্থী। যার ফলে পা শুষ্ক হয়ে পড়ে ও ত্বক ফেটে যায়। যখন অল্প বয়স থাকে, তখন এসব সমস্যা দেখা দেয় না। যত বয়স বাড়ে সমস্যা শুরু হয়। ত্রিশ বছর বয়স হলে আরও বেশি করে যতœ করতে হয়- না হলে সমস্যা বাড়ে। গোড়ালি ফাটার সমস্যায় আক্রান্ত হলে রেহাই পাওয়া বেশ কষ্টকর, তাই ভালো হয় সমস্যা দেখা দেয়ার আগেই পায়ের নিয়মিত  যত্ন নেয়া।
স্ক্রাবিং : মিনিট দশেক খুব হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পা ডুবিয়ে রাখুন। এরপর খুব ভালোভাবে পা মুছে নিয়ে এই স্ক্রাব ব্যবহার করুন। মোটা দানার চিনি, লেবুর রস, খাঁটি নারিকেল তেল পরিমাণ মতো মিশিয়ে দুই পায়ে লাগিয়ে নিন। চিনি যতক্ষণ না গলে যাচ্ছে ততক্ষণ হালকা হাতে ঘষতে থাকুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন।
প্যাক : বেসনের সঙ্গে মধু, হলুদ বাটা, অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে পায়ে ও গোড়ালিতে লাগাবেন। ২০ মিনিট পর হালকা হাতে ঘষে তুলে ফেলুন।
ফাটা গোড়ালি নিরাময়ে প্যাক : নারিকেল তেল ও পেঁপের মিশ্রণ ফাটা গোড়ালিতে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার খুব হালকা কুসুম গরম পানিতে চার টেবিল চামচ পুদিনার রস মিশিয়ে পা ডুবিয়ে রাখুন। এতে রক্ত সঞ্চালন ভালো হবে তার সঙ্গে ফাটা গোড়ালির সমস্যাও দূর হবে।
টিপস
১. পায়ের চামড়া টেনে তুলবেন না।
২. পায়ের পাতার ত্বক যাতে শুষ্ক না থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখুন ।
৩. ময়েশ্চারাইজার লাগানোর আগে ত্বকের মরা কোষ পরিষ্কার করে নিন।
৪. খুব ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় পা সুতির পরিষ্কার মোজা দিয়ে ঢেকে রাখুন।
৫. নিয়মিত অলিভঅয়েল ম্যাসাজ ত্বক ও নখ দুই-ই ভালো রাখে।
৬. পা সুন্দর ও গোড়ালির সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এই সময়ে সপ্তাহে একদিন পেডিকিউর করতে হবে।
৭. শোয়ার সময় গোড়ালিতে ক্যাস্টরঅয়েল লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন।
শাহিনা আফরিন মৌসুমি, কর্ণধার হার্বস আয়ুর্বেদিক স্কিন কেয়ার ক্লিনিক

0 comments:

Post a Comment