Last update
Loading...

বিশ্বনাথে ঝুপ থেকে সুস্থ্ নবজাতক উদ্ধার

বিশ্বনাথে বনের ঝুপ থেকে এক নবজাতক শিশু কন্যাকে জীবিত এবং সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করেছেন এলাকাবাসী। গত বুধবার রাতে উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের মধনপুর গ্রামের পরিমল দাস (৪৫) এর বাড়ির পাশে একটি বনের ঝুপে শিশুটিকে পাওয়া যায়। শিশুটি পাওয়ার পর পাশ্ববর্তী নোয়ারাই গ্রামের সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালক নুর মিয়ার (৪০) জিম্মায় দিয়েছে থানা  পুলিশ। তবে শিশুটির মা-বাবার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।জানাযায়, গত বুধবার রাত ৯টায় নোয়ারাই গ্রামের নারায়ন দাসের পুত্র পশাল দাস (২০) আমতৈল বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তার পাশে বনের ঝুপে একটি শিশুর কান্না শোনতে পান। এসময় তিনি মোবাইলের লাইট জালিয়ে দেখতে পান নিল রংয়ের একটি শপিং ব্যাগের ভেতরে ওই শিশুটি কান্না করছে। পরে তিনি স্থানীয় মেম্বার শফিক মিয়া’সহ আশপাশের লোকজনকে খবর দেন।
এরপর ইউপি মেম্বার শফিক মিয়া ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে মোবাইলের মাধ্যমে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম’র সাথে যোগাযোগ করেন। সংবাদ পাওয়ার পর থানার ওসি শিশুটিকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। ওসির কথা মতো শিশুটিকে বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান ইউপি মেম্বার। এসময় তার সাথে ছিলেন পলাশ দাস, সিএনজি চালক নুর মিয়া ও মধনপুর গ্রামের আব্দুল রউফ (৫০)। সাথে সাথে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থানার এসআই সফিকুল ইসলাম’কে পাঠিয়ে দেন ওসি। শিশুটিকে কর্তব্যরত ডাক্তার তারেক নুরুল ইসলাম চিকিৎস্যা দেন। চিকিস্যার সময় দেখা যায় শিশুটির নাড়িতে নিল রংয়ের একটি ক্লাম (ক্লিপ) পড়ানো ছিল। এসময় ডাক্তার বলেন- শিশুটির বয়স অনুমান ২৪থেকে ৪৮ঘন্টা হবে। তবে শিশুটি সুস্থ রয়েছে। কিন্তু এই মুহোর্তে তার জন্য মায়ের বুকের দুধ খাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। ডাক্তারের কথা শোনে ওই সিএনজি চালক শিশুটিকে লালন পালনের দায়িত্ব নিতে চাইলে পুলিশ তার জিম্মায় দেয়। বৃহস্পতিবার জানতে চাইলে তার কাছে শিশুটি ভালো রয়েছে বলে জানিয়েছেন নুর মিয়া।

0 comments:

Post a Comment