Last update
Loading...

পাকিস্তানে ফের ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক!

নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের সেনা ঘাঁটিতে আক্রমণ চালিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। গত বছরের ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের’ পর ভারতীয় সেনারা আবারও একই ধরনের আক্রমণ করল। কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছাকাছি পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত এলাকায় সোমবার রাতের আকস্মিক এ হামলায় তিন পাক সেনা নিহত হয়েছেন। তবে এ অপারেশনকে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ অ্যাখ্যা দেয়নি ভারতীয় সেনাবাহিনী। খবর এনডিটিভি ও ডনের। ভারতীয় সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, পুঞ্চ সেক্টরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১০ সদস্যের একটি বিশেষ দল নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করে পাকিস্তানের একটি সেনা চৌকিতে হামলা চালিয়ে তিন সৈন্যকে হত্যা করেছে। ভারত যে ধরনের আক্রমণ চালিয়েছে, তাকে সামরিক পরিভাষায় ‘ক্রস বর্ডার রেড’ বলা হয়। অর্থাৎ, নিয়ন্ত্রণ রেখা টপকে সেনা ঘাঁটি লক্ষ্য করে আক্রমণ চালানো। শনিবার জম্মু-কাশ্মীরে ভারত-পাক নিয়ন্ত্রণ রেখায় পাকিস্তান সেনার হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন এক মেজরসহ চার ভারতীয় সেনা। এদিন ভারতীয় সেনা দলকে নির্দিষ্ট নিশানা করেই হামলা চালানো হয়েছিল।
সামরিক পরিভাষায় যার নাম ‘টার্গেটেড কিলিং’। পাকিস্তানের ‘টার্গেটেড কিলিংয়ের’ জবাবে ভারতের এ ‘ক্রস বর্ডার রেড’ অভিযান। পাকিস্তানি সেনারা ভারতীয় সেনাদের ওপর আক্রমণ চালালে ‘নিশ্চিতভাবেই তার প্রতিক্রিয়া’ দেখানো হবে বলে সোমবারের অভিযানের মাধ্যমে স্পষ্ট বার্তা দেয়া হয়েছে। হামলার বিস্তারিত জানা না গেলেও ওই ‘অভিযানে ভারতীয় সেনাদের কেউ আহত হয়নি’ বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ দফতরও (আইএসপিআর) তাদের তিন সেনা নিহতের কথা স্বীকার করেছে। ডন জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় রাওলাকোট এলাকার রুখ চাকরি সেক্টরে ভারতীয় বাহিনীর গোলায় তিন সৈন্য নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। পাকিস্তান ভারতীয় হামলার জবাব দিয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। কোনো ধরনের উসকানি ছাড়াই ‘যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন’ করে ভারত এ হামলা চালিয়েছে বলে দাবি পাক আইএসপিআরের। ২০১৬ সাল থেকেই জঙ্গি হামলার পাশাপাশি পাক বাহিনীর বারবার হামলায় উত্তপ্ত নিয়ন্ত্রণ রেখা। তবে সেনা সূত্রের মতে, নৌশেরা সেক্টরে ছোটখাটো সংঘর্ষ বিরতি হলেও প্রায় মাসখানেক পরে শনিবার ফের বড় হামলা চালায় পাকিস্তান। ১৬ নভেম্বর পুঞ্চের শাহপুর ও দেগওয়ারে বড় ধরনের মর্টার হামলা চালায় পাক সেনারা। চলতি বছর এখনও পর্যন্ত ৩০০ বার যুদ্ধবিরতি ভেঙেছে পাকিস্তান। এতে সেনা ও স্থানীয় বাসিন্দা মিলে ১২ জন নিহত হয়েছেন। পাক সেনাপ্রধান কামার বাজওয়া সম্প্রতি ভারতের সঙ্গে শান্তি স্থাপনের কথা বলেছিলেন। যদিও তারপরই ভারতীয় সেনাকে লক্ষ্য করে হামলা চালায় পাক সেনা। এতে স্পষ্ট যে বাজওয়া মুখে যাই বলুন, পাক সেনাবাহিনী ভারতবিরোধিতার অবস্থান থেকে একচুলও নড়েনি।

0 comments:

Post a Comment