Last update
Loading...

জেরুজালেমকে রক্ষায় তৃতীয় ইনতিফাদায় ‌ ‘পূর্ণ সমর্থন’ হিজবুল্লাহর

ইহুদিবাদী অবৈধ দখলদারি থেকে পবিত্র জেরুজালেম শহরকে রক্ষায় ফিলিস্তিনিদের তৃতীয় ইন্তিফাদায় (গণঅভ্যুত্থান) পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ। সংগঠনটি বলেছে, এখন থেকে ইসরাইলের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলাই হবে তাদের প্রধান সামরিক কৌশল। যুক্তরাষ্ট্র জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করার ঘটনায় এ ঘোষণা দেন লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ। তিনি বলেন, জেরুজালেম আমাদের। একে রক্ষায় ফিলিস্তিনিদের তৃতীয় ইন্তিফাদা বা গণঅভ্যুত্থানে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। একই সঙ্গে পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণার জন্য আমরা বিশ্ববাসীর সমর্থন চাইছি। লেবাননের রাজধানী বৈরুতের দাহিয়েহ এলাকায় সোমবার অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে ভাষণ দেন হাসান নাসরুল্লাহ। তিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলের বিরুদ্ধে লেবাননসহ বিশ্বজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এসব কর্মসূচিতে বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশগ্রহণ করায় তাদের তিনি ধন্যবাদ জানান। পাশাপাশি যেসব দেশ ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে তাদের ভূমিকারও প্রশংসা করেন হিজবুল্লাহ প্রধান। হাসান নাসরুল্লাহ বলেন, বায়তুল মুকাদ্দাসকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকা ও হোয়াইট হাউজকে সারা বিশ্ব থেকে একঘরে করে ফেলেছেন। ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে  নাসরুল্লাহ বলেন, বায়তুল মুকাদ্দাস ইস্যুতে ট্রাম্প যে অবস্থান নিয়েছেন তার পুরোটাই নেতিবাচক। তিনি যা আশা করেছিলেন তার বিপরীত প্রতিক্রিয়া এসেছে এশিয়া, ইউরোপ ও আফ্রিকা থেকে। তিনি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সাইবার জগত ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ সব জায়গায় প্রতিবাদ অব্যাহত রাখা আহ্বান জানান। গত বুধবার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আনুষ্ঠানিকভাবে দখলকৃত জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা দেন। এর মধ্য দিয়ে ফিলিস্তিনিদের ভূমি অবৈধভাবে দখল করা ইসরাইলিদের বৈধতা দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ মুসলিম বিশ্বের। এরপর ফিলিস্তিনিদের প্রতিরোধ সংস্থা হামাস তৃতীয় ইন্তিফাদার আহ্বান জানায়। স্বাধীনতাকামী সব সংগঠন ও ফিলিস্তিনের সরকার পরিচালনাকারী সংগঠন ফাতাহও সর্বাত্মক প্রতিরোধের ঘোষণা দেয়। এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে ফিলিস্তিনিরা বৃহস্পতিবার থেকে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করছে। এসময় তাদের কর্মসূচিতে বাধা দিয়ে সংঘাতে জড়ায় ইসরাইলি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। এতে অন্তত চার জনের প্রাণহানি ও সহস্রাধিক আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো।

0 comments:

Post a Comment