Last update
Loading...

গৌরীপুরে ৫ পেট্রোল বোমা বিস্ফোরণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ৫টি পেট্রোল বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। বিস্ফোরণে রফিকুল ইসলাম (ধান ব্যবসায়ী) ও মতি মিয়া (অটোচালক)  নামে দুই ব্যক্তি দগ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় আরো ১০/১২জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে গৌরীপুরের শাহগঞ্জ বাজারে অবস্থিত অচিন্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের ছাদ থেকে এ পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করা হয় বলে প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। গৌরীপুর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক সৈয়দা মাকনূন হৃদি জানান, মতি মিয়ার শরীরের ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে, তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আর রফিকুল ইসলামের চিকিৎসা চলছে। গৌরীপুর থানার সহকারি পুলিশ পরিদর্শক মো. শাহ জালাল জানান, শাহগঞ্জ বাজারে ৫টি পেট্রোল বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে। একটি রিকশা পুড়ে গেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মর্জিনা আক্তার জানান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলাম অন্তর পেট্রোল বোমা হামলার খবর জানিয়েছেন।
সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার আহম্মদ জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের একটি অংশ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম অন্তরের ওপর হামলা করেছে বলে জানা গেছে। চেয়ারম্যান জানিয়েছে, ওরা মহান বিজয় দিবস অনুষ্ঠান উদযাপন করতে দেয়নি। তবে হামলার প্রকৃত কারণ এখনও উদঘাটন সম্ভব হয়নি। পেট্টোল বোমায় দগ্ধ অচিন্তপুর ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল রশিদের পুত্র মো. মতি মিয়া (২৮) জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে শাহগঞ্জ বাজারে অবস্থিত অচিন্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের ছাদ থেকে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। আমি অটোরিকশায় ছিলাম। হঠাৎ করেই আমার পুরো রিকশাটি পুড়ে যায় ও আগুন ধরে যায়। আহতের চাচাতো ভাই প্রত্যক্ষদর্শী খোরশেদ আলম জানান, পুরো শরীরে আগুন নিয়ে দৌড়ে আমার দোকানে ওঠে। অপর দগ্ধ ব্যক্তি খালিজুড়ী গ্রামের আব্দুল মজিদের পুত্র ধান ব্যবসায়ী  মো. রফিকুল ইসলাম (৪২) জানান, আমি ইউনিয়ন পরিষদের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। কিভাবে শরীরে আগুন ধরে গেলো বুঝতে পারি নাই। ঘটনার পরপরই শাহগঞ্জ বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

0 comments:

Post a Comment