Last update
Loading...

কালীগঙ্গার উত্তর পার ঢেলে সাজানো হবে

দীর্ঘদিনের অবহেলিত ও নদীভাঙন কবলিত মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নে আমাদের কাজ করতে হবে। কালীগঙ্গা নদীর উত্তর পারের অবহেলিত অঞ্চল ঢেলে সাজানো হবে, তবেই নবাবগঞ্জের পূর্ণাঙ্গ উন্নয়ন সম্ভব হবে। কৃষিপ্রধান এ অঞ্চলে এক সময় গড়ে উঠবে কৃষি ও শিল্পভিত্তিক কলকারখানা। শনিবার বিকালে নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের আটকাহনিয়া মাদ্রাসা মাঠে জাতীয় পার্টিতে যোগদান ও কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার পর দীর্ঘদিন কালীগঙ্গা পারের মানুষ অবহেলা ও দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে আছেন। যারা বিভিন্ন সময়ে এ অঞ্চলের মানুষের ভোটে নির্বাচিত হয়ে মন্ত্রী, এমপি ও বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি হয়েছেন, তারা নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটিয়েছেন। কিন্তু যাদের ভোটে তারা নেতা-মন্ত্রী হয়েছিলেন তাদের উন্নয়নের জন্য কিছু করেননি, জনগণ তাদের ভোটের মাধ্যমে প্রত্যাখ্যান করেছে। আপনারা আমাকে ভোটের মাধ্যমে এমপি নির্বাচিত করে আপনাদের প্রতিনিধি করে সংসদে যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন, এজন্য আপনাদের কাছে আমি চিরঋণী। আমার রাজনীতির মূল লক্ষ্য আপনাদের ও এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাওয়া। আগামী দিনে আপনাদের সমর্থন ও সহযোগিতার হাত অব্যাহত থাকলে এ অঞ্চলের উন্নয়নে আমি সব রকমের চেষ্টা চালিয়ে যাব। উপস্থিত পুরুষ-মহিলারা এ সময় ‘সালমা তুমি এগিয়ে চল, আমরা আছি তোমার সাথে’ স্লোগানে মুখরিত করে তোলেন।
এ সময় জাতীয় পার্টির প্রতীক লাঙল কাঁধে নিয়ে কৃষকরা সালমা ইসলামকে স্বাগত জানায়। শত শত নারী-পুরুষ তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। নবাবগঞ্জের অজপাড়া গাঁয়ের নারী-পুরুষ সালমা ইসলামকে একনজর দেখতে ছুটে আসেন। ঢাকা থেকে সিঙ্গাইর হয়ে আটকাহনিয়া পৌঁছলে সালমা ইসলামকে বরণে প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনেক লোক সমবেত হন।  সেখানে তাকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। ফুলেল শুভেচ্ছা ও সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হন মহীয়সী নারী সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম। সাবেক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম এমপি এ সময় আরও বলেন, দেশের কৃষক সমাজই আমাদের মূল চালিকা শক্তি। প্রখর রোদে পুড়ে তারা আমাদের জন্য খাদ্য উৎপাদন করেন। অথচ তারাই সবচেয়ে বেশি অবহেলিত আমাদের সমাজে, সময় এসেছে তাদের জন্য কাজ করার। তাই আসুন দলমত নির্বিশেষে সবাই মিলে কৃষি অধ্যুষিত নবাবগঞ্জ ও দোহারের উন্নয়নে কাজ করি। সবাই মিলে দেশের কল্যাণে কাজ করি। অনুষ্ঠানে জয়নাল আবেদীন চঞ্চলের নেতৃত্বে প্রায় তিন শতাধিক নারী-পুরুষ সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম এমপির হাতে ফুল দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন। স্থানীয় জাতীয় পার্টির নেতা আবদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার নুরুল আনোয়ার বেলাল, উপজেলা সদস্য সচিব শরফুদ্দিন আহমেদ শরীফ, ঢাকা জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন দিলু, উপজেলা যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর চোকদার, এমএ মজিদ, আসাদুজ্জামান চৌধুরী রানা, নাজিম আহমেদ, আজিজুর রহমান, মো. ওয়ালিদ হোসেন, আবদুল মতিন, আবদুল হালিম, আসমা আক্তার রুমি, সিরাজুল ইসলাম, আলিমুদ্দিন, মাহবুব হোসেন, আফজাল হোসেন, সুজন মাহমুদ, মতি মিয়া, ছাত্র সমাজের রাজিব খান, খলিল দেওয়ান, রাকিব হোসেন, শাহরুখ খান, মিজানুর রহমান ও মো. ফয়সাল প্রমুখ।

0 comments:

Post a Comment