Last update
Loading...

ট্রাম্প ২০১৭ সালে যেসব মিথ্যা বলেছেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যেসব কারণে বিশ্বব্যাপী কুখ্যাতি পেয়েছেন তার মধ্যে অন্যতম অনর্গল মিথ্যা বলা। রোববার টিভি নেটওয়ার্ক এনবিসি নিউজ ২০১৭ সালে ট্রাম্পের মুখ নিসৃত প্রধান কয়েকটি মিথ্যার তালিকা প্রকাশ করেছে। চ্যানেলটি জানায়, ২০১৭ সালে ট্রাম্প আমেরিকার জনগণকে বহু মিথ্যা ও অবিশ্বাস্য কল্পকাহিনী শুনিয়েছেন। তিনি বছর শুরুই করেছেন মিথ্যা দিয়ে। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানকে নিয়ে প্রথম মিথ্যা কথা বলেন। ট্রাম্প দাবি করেন, তার শপথ অনুষ্ঠানে যত মানুষ উপস্থিত ছিল এর আগের কোনো প্রেসিডেন্টের শপথ অনুষ্ঠানে তত মানুষ উপস্থিত হয়নি।
ট্রাম্প দ্বিতীয় বড় মিথ্যাটি বলেছেন কংগ্রেস প্রতিনিধিদের কাছে। তিনি দাবি করেছেন, ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটন লাখ লাখ জাল ভোট পেয়েছেন। অথচ এ ধরনের কোনো প্রমাণ আমেরিকার নির্বাচনী কর্তৃপক্ষ পায়নি। ইউরোপীয় দেশগুলোর পক্ষ থেকে যুদ্ধবিধ্বস্ত বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের আশ্রয় দেয়ার সমালোচনায় গত ফেব্রুয়ারিতে ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের দেশকে নিরাপদ রাখতে হবে এবং এ রাতে জার্মানি ও সুইডেনে যা ঘটেছে তা থেকে শিক্ষা নিতে হবে।’ ট্রাম্পের ওই ঘোষণার পরদিন সুইডেনের একটি পত্রিকা খবর দেয়, ওই রাতে দেশটিতে বিশেষ কোনো ঘটনাই ঘটেনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, ট্রাম্প টাওয়ারে তার টেলিফোনে আড়ি পেতেছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। কিন্তু তার এই দাবি ছিল সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং এ ধরনের কোনো প্রমাণ মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো পায়নি। এছাড়া ট্রাম্প রাশিয়ার সঙ্গে তার গোপন সম্পর্কের বিষয়টিকে ‘মিথ্যা ও বানোয়াট’ বলে উল্লেখ করেছেন। কিন্তু নিরাপত্তা বাহিনীর তদন্তে এই বিষয়টি সম্পূর্ণ সত্য প্রমাণিত হয়েছে। এনবিসি নিউজের মতে, ট্রাম্প দাবি করেছেন, বিশ্বের যে কোনো মানুষের চেয়ে আমরাই বেশি কর দিয়ে থাকি। কিন্তু কর বিশ্লেষকরা বলছেন, ট্রাম্পের এ হিসাব-নিকাশ যৌক্তিক নয়।

0 comments:

Post a Comment