Last update
Loading...

গাছে গাছে হাসছে আমের মুকুল

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব পড়েছে গাছ পালাতেও। পৌষ ও মাঘের শীত শেষে হালকা গরমের সাথে গাছে গাছে আমের মুকুল দেখা দেয়ার কথা থাকলেও জয়পুরহাটে আম গাছগুলোতে আগাম মুকুল ধরেছে। আমের জন্য এ জেলার সুখ্যাতি না থাকলেও স্থানীয় জাতের 'নাক ফজলী’ আম বেশ জনপ্রিয়। এ ছাড়াও আম্রপালি, গোপালভোগ জাতের আমও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ইতোমধ্যে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানায়, একটি শৈত প্রবাহ ছাড়া পৌষ মাসে এখনো তেমন শীতের দেখা মিলছে না। জলবায়ু পরিবর্তনের এ প্রভাব পড়েছে গাছ পালাতেও। তেমন শীত না থাকায় জেলায় আমের গাছে শোভা পাচ্ছে আগাম জাতের আমের মুকুল। জেলায় এবার ২০১৬-১৭ মৌসুমে আট 'শ ৪৯ হেক্টর জমিতে আমের চাষ হয়েছে। এতে আমের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে নয় হাজার নয় 'শ ৮৮ মেট্রিকটন। এ ছাড়াও বে-সরকারি পর্যায়ে শতাধিক ছোট বড় মিলে ৫৬০টি আমের বাগানও রয়েছে। স্থানিয় জাতের মধ্যে 'নাকফজলী’ সুবর্ণরেখা, সুরমাফজলী, ক্ষিরশাপাত, আম্রপালি, আশ্বিনা, গোপালভোগ, নেংড়া আম বেশ জনপ্রিয়। নাকফজলী আম কিছুটা লম্বাটে আকৃতির এ আমের মধ্যে বিচি থাকে ছোট। খেতে বেশ সু স্বাদু এবং গন্ধময়। নাকফজলি ছাড়াও আম্রপালি, গোপালভোগ আমের সাথে নেঙ্গড়া আমের চাষ দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানান জয়পুরহাট কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক সুধেন্দ্র নাথ রায়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আমের বাম্পার ফলনের আশা করেন তিনি।

0 comments:

Post a Comment