Last update
Loading...

নওগাঁয় ৫০ টাকার জন্য ক্রেতার গায়ে আগুন

নওগাঁর পত্নীতলায় পাওনা ৫০ টাকা না দেয়ায় এক ক্রেতার গায়ে পেট্রুল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে চা দোকানি। মারাত্মক দগ্ধাবস্থায় ক্রেতা আলিমুলকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার নজিপুর পৌর সদরের ঠুকনীপাড়া মোড়ে চায়ের দোকানে এ ঘটনা ঘটে। ক্রেতা আলিমুল উপজেলার কাশিপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে। আর চা দোকানি তাপস কুমার মহন্ত উপজেলার একই গ্রামের তপন চন্দ্রের ছেলে। ঘটনার পর থেকে দোকানি তাপস কুমার পলাতক রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে আলিমুল দোকানে চা পান করতে গেলে দোকানি তাপস কুমার তাকে বকেয়া ৫০ টাকা পরিশোধের জন্য তাগাদা দেয়। দোকানিকে আলিমুল পরে টাকা পরিশোধ করবে জানিয়ে দোকান থেকে চলে যাওয়ার জন্য উদ্যত হয়। এতে দোকানি তাপস কুমার উত্তেজিত হয়ে পাশের দোকানে থাকা পেট্রুল নিয়ে এসে আলিমুলের গায়ে ছুড়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। স্থানীয়রা দগ্ধ আলিমুলকে সঙ্গে সঙ্গে পাশের ডোবার পানিতে নামিয়ে দেয়। এতে আগুন নিভে গেলে তাকে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পত্নীতলা থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম বলেন, ভুক্তভোগীর পরিবার থেকে কোনো মামলা হয়নি। দোকানি তাপস কুমার পলাতক থাকায় তাকে আটকের চেষ্টা চলছে।

0 comments:

Post a Comment