Last update
Loading...

কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচিত হলেন রাহুল গান্ধী

ভারতের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন রাহুল গান্ধী। সর্বসম্মতিক্রমে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হলেন। এ পদে রাহুলের বিরুদ্ধে কোনো প্রার্থী ছিলেন না। গুজরাটের বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত রাহুল এখনই দায়িত্ব গ্রহণ করছেন না। গুজরাটের ভোটপর্ব শেষ হওয়ার দুই দিন পর ১৬ ডিসেম্বর রাহুল আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। এদিন ৪৭ বছর বয়সী রাহুলের কাছে দলের সভাপতির দায়িত্ব বুঝিয়ে দেবেন বর্তমান সভাপতি ও তার মা সোনিয়া গান্ধী। খবর এনডিটিভির। সভাপতি নির্বাচনে অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটির রিটার্নিং অফিসারকে উদ্ধৃত করে সোমবার বার্তা সংস্থা এএনআই জানায়, ‘বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন রাহুল গান্ধী।’ টানা ১৯ বছর কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্বে থাকা সোনিয়া ছেলে রাহুলের হাতে দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে বিদায় নেবেন। এর মাধ্যমে ভারতীয় কংগ্রেসের নেতৃত্ব এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্মে হস্তান্তরিত হবে। ভারতের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের নেহরু-গান্ধী পরিবারের পঞ্চম সদস্য রাহুল। ১৩২ বছরের পুরনো দল কংগ্রেসকে ১৯৯৮ সাল থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রাহুলের মা সোনিয়া গান্ধী। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে রাহুলকে কংগ্রেসের সহসভাপতি করা হয়। তারপর থেকে তিনি দলের দ্বিতীয় প্রধান নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। শারীরিক অসুস্থতার কারণে কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি ৭০ বছর বয়সী সোনিয়া আর আগের মতো দায়িত্ব পালন করতে পারছিলেন না। এ কারণে কংগ্রেসের সভাপতি পদে পরিবর্তন অনেকটা অনুমিত ছিল। সোমবার দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা এম ভীরাপ্পা মইলি বলেন, দলীয় সভাপতির পদ থেকে সরে গেলেও কংগ্রেসের পার্লামেন্ট দলীয়প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাবেন সোনিয়া। দলের লক্ষ্য ও দিকনির্দেশনাও দেবেন তিনি। ৪ ডিসেম্বর রাহুল গান্ধী দিল্লির আকবর রোডে দলীয় কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর আগে রাহুলকে দলের সভাপতি করতে কংগ্রেসের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে মোট ৮৯টি প্রস্তাব আসে। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর একের পর এক রাজ্যে ক্ষমতা হারিয়েছে কংগ্রেস। ৫৪৩ আসনের লোকসভায় প্রাচীন দলটির সদস্য এখন মাত্র ৪৪ জন। তাই এখন রাহুলের নেতৃত্বে ভরসা রেখে আবারও ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে দলটি।

0 comments:

Post a Comment