Last update
Loading...

আজ সারা দিন ঝরবে বৃষ্টি

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের কারণে রাজধানীসহ দেশের কয়েকটি অঞ্চলে গত দু'দিন থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ঝরছে। আজ রোববারও অব্যাহত রয়েছে বৃষ্টি। বিকাল পর্যন্ত আকাশের অবস্থা থাকবে প্রায় একই রকম। এদিকে সকালে বৃষ্টির কারণে রাজধানীতে যানবাহন কম দেখা গেছে। গণপরিবহন কম থাকায় অফিসগামীদের কিছুটা ভোগান্তিতে পড়তে হয়। কাদামাখা পানিতে  আটকে থাকে সারি সারি গাড়ি। দেখা দেয় যানজট। ঢাকা আবহাওয়া কার্যালয়ের আবহাওয়াবিদ রুহুল আমিন জানান, আগামীকাল সোমবার সকালেও আকাশ মেঘলা থাকবে। দিনের শেষে আকাশ কিছুটা পরিষ্কার হয়ে উঠতে পারে। বৃষ্টির কারণে শীত অনুভূত হচ্ছে। তবে নিম্নচাপ সরে গেলে মধ্য ডিসেম্বরের পর থেকে এমনিতেই শীতের তীব্রতা একটু বাড়বে। আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়, রোববার এবং আগামীকাল সোমবারও বৃষ্টি থাকবে। দেশের অধিকাংশ স্থানে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টিরও সম্ভাবনা আছে। বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপটি সক্রিয় থাকায় আজও দেশের চারটি বন্দর ও কক্সবাজার উপকূলকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।
দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল, দক্ষিণাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। তবে দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলে বৃষ্টিপাত কিছুটা কম হতে পারে। নিম্নচাপের কারণে ৪০ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে দমকা বাতাস বয়ে যেতে পারে। ফলে বঙ্গোপসাগরের নৌযানগুলোকে সাবধানে চলাচল করতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। গত শুক্রবার গভীর রাত থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কয়েক স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। শনিবার সকালেও আকাশ ছিল মেঘে ঢাকা। অসময়ের এ বৃষ্টিতে ঠাণ্ডার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়ে দেশবাসী। আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান জানান, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের কারণে রোববার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত থাকবে এবং সোমবার থেকে অবস্থার উন্নতি হবে। সাগর উত্তাল থাকায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও এর আশপাশের এলাকায় সৃষ্ট নিম্নচাপটি উত্তর অথবা উত্তরপূর্ব দিকে সরে আসতে পারে। নিম্নচাপটি এখন সামান্য উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে সরে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি শনিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম বন্দরের ৬৬০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে, কক্সবাজার বন্দর থেকে ৬৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে, মোংলা বন্দর থেকে ৪৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে এবং পায়রা বন্দর থেকে ৫০৫ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থান করছিল বলে আবহাওয়া দফতর জানায়। এ সময় পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে নিরাপদ অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে।

0 comments:

Post a Comment