Last update
Loading...

নিখোঁজের দেড় মাস পর গৃহবধূর বস্তাবন্দি দেহাবশেষ উদ্ধার

নওগাঁর নিয়ামতপুরে নিখোঁজের দেড় মাস পর আলেমা (২০) নামে এক গৃহবধূর বস্তাবন্দি হাড়গোড় উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গৃহবধূর স্বামী শাহরিয়ার শাওনসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার উত্তরবাড়ী গ্রামের গোরস্তানের পাশ থেকে এ দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়। আলেমা উত্তরবাড়ী গ্রামের আবুল হোসেনের মেয়ে। জানা যায়, উপজেলার উত্তরবাড়ী গ্রামের রাশেদ মেনন রুমির ছেলে শাহরিয়ার শাওন একই গ্রামের আবুল হোসেনের মেয়ে আলেমার সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। আড়াই মাস আগে বাড়ি থেকে পালিয়ে ঢাকায় গিয়ে তারা বিয়ে করে। দীর্ঘ এক মাস ১২ দিন ঢাকায় অবস্থান করার পর শাহরিয়ার শাওন ও আলেমা  বাড়িতে ফিরে আসে। আলেমা তার স্বামী শাহরিয়ার শাওনের বাড়িতেই ছিল। এর কয়েক দিন পর হঠাৎ আলেমা নিখোঁজ হয়। আলেমাকে তার পরিবার, আত্মীয়স্বজনসহ বিভিন্ন স্থানে খুঁজে পায়নি। অবশেষে নিহতের ভাই শরীফ শনিবার থানায় একটি অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযানে নামে থানা পুলিশ।
উত্তরবাড়ী গ্রামের উত্তর দিকের গোরস্তানের পাশের একটি পুকুর পাড় থেকে শনিবার সন্ধ্যার দিকে মাটিতে পুঁতে রাখা বস্তাবন্দি  গলিত লাশের হাড়গোড় উদ্ধার করে থানা পুলিশ। নিয়ামতপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, গৃহবধূর ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে আলেমার স্বামী শাহরিয়ার শাওনের সঙ্গে কথা বললে তিনি অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে সত্য বেরিয়ে আসে। তার দেয়া তথ্যে দেড় মাস আগে গুম হওয়া গৃহবধূর লাশ মাটিতে পুঁতে রাখা বস্তাবন্দি হাড়গোড় উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আলেমার স্বামী শাহরিয়ার শাওন, তার বাবা রাশেদ মেনন রুমি, মা সুলতানা রাজিয়া ও চাচা নাহিদ রেজা রুবেলকে আটক করা হয়েছে।

0 comments:

Post a Comment