Last update
Loading...

আদালতে দাঁড়িয়ে বিষ খেয়ে যুদ্ধাপরাধীর আত্মহত্যা

হেগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে দাঁড়িয়ে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে এক যুদ্ধাপরাধী। তার নাম স্লোবোদান প্রালিয়াক। যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে সাবেক যে ছয়জন বসনীয় ক্রোয়াট রাজনৈতিক ও সামরিক নেতাকে আদালতের কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে, তাদের অন্যতম হচ্ছেন প্রালিয়াক। পূর্ব মোস্তার শহরে যুদ্ধাপরাধের দায়ে ২০১৩ সালে তাকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। যুগোশ্লাভ যুদ্ধাপরাধ মামলায় চূড়ান্ত আপিলের শুনানির জন্য আদালতে হাজির করা হয়েছিল এই ছয়জন অভিযুক্তকে। আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের রায়ে তার কারাদণ্ড বহাল রাখার ঘোষণা শোনার পর প্রালিয়াক বিচারককে বলেন, ‘আমি বিষ খেয়েছি।’ বিবিসি জানায়, প্রালিয়াক উঠে দাঁড়ান এবং মুখের কাছে হাত তোলেন, মাথাটা পেছনদিকে এমনভাবে হেলান যাতে মনে হয় তিনি গেলাস থেকে তরল কিছু পান করছেন। বিচারকমণ্ডলীর সভাপতি সঙ্গে সঙ্গে আদালতের কার্যক্রম স্থগিত করে দেন এবং অ্যাম্বুলেন্স ডাকেন।
বিচারক বলেন, ‘ঠিক আছে, আমরা স্থগিত...আমরা স্থগিত...দয়া করে পর্দা টেনে দিন। যে গ্লাস থেকে তিনি কিছু একটা পান করলেন সেটা কেউ সরাবেন না।’ পর্দা টেনে দেয়ার আগে আদালত কক্ষে একটা বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়। পরে হাসপাতালে নেয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। বসনীয় ক্রোয়াট প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রথমসারির সৈন্যদের সাবেক অধিনায়ক প্রালিয়াককে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধে কারাদণ্ড দেয়া হয়। জাতিসংঘ যুদ্ধাপরাধ মামলার রায়ে বলা হয়, ১৯৯৩ সালের গ্রীষ্মে সৈন্যরা প্রোজোর এলাকায় মুসলিমদের যখন ব্যাপক ধরপাকড় করছিল, তখন খবর পেয়েও তিনি তা বন্ধ করার জন্য কোনো উদ্যোগ নেননি। মুসলিমদের হত্যার পরিকল্পনা করা হচ্ছে এবং পূর্ব মোস্তারে মসজিদ এবং আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যদের ওপর হামলা চালানোর পরিকল্পনার খবর জানার পরেও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি।

0 comments:

Post a Comment