Last update
Loading...

পোপ বাংলাদেশের পক্ষেই আছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, আমরা যখন রোহিঙ্গাদের নিয়ে বিপদে আছি, তখন ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিসের সফর গুরুত্ব বহন করে। পোপ বাংলাদেশের পক্ষেই রয়েছেন বলেও দাবি করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় ইয়াঙ্গুন থেকে সরাসরি হযরত শাহজালাল (রহ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছবেন পোপ। এর আগে সকালে তার সফর নিয়ে কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। উল্লেখ্য, শান্তি ও সংহতির বার্তা নিয়ে সোমবার থেকে চার দিনের সফরে সংঘাত পীড়িত মিয়ানমারে অবস্থান করছেন পোপ ফ্রান্সিস। গত আগস্ট থেকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনী জাতিগত নিধন অভিযান শুরু হলে এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছিলেন পোপ ফ্রান্সিস। তখন তিনি রোহিঙ্গাদের ‘রোহিঙ্গা ভাই ও বোন’ বলে সম্বোধন করেছিলেন। তবে মিয়ানমার সফরকালে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটিও উচ্চারণ করেননি তিনি। এ অবস্থায় মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের পক্ষে সোচ্চার হওয়ার জন্য প্রশংসিত পোপের অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। তবে তার অবস্থানের বিষয়ে আশাবাদ জানালেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বাংলাদেশে পোপের সফরসূচি: ক্যাথলিক খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নেতা পোপ ফ্রান্সিস তিন দিনের সফরে আজ বিকালে ঢাকায় আসছেন। বিশেষ বিমানে বিকাল ৩টায় ইয়াঙ্গুন থেকে সরাসরি হযরত শাহজালাল (রহ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছবেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানাবেন। বিমানবন্দর থেকে পোপ সরাসরি সাভারে অবস্থিত জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের অমর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। তার পর তিনি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে গিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। সেখানে তিনি স্মৃতিগ্রন্থে স্বাক্ষর করবেন। পোপ প্রথম দিনেই বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। বঙ্গভবনে রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ, সুশীলসমাজ ও কূটনৈতিক মহলের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সেখানে পোপ বক্তব্য রাখবেন। সফরের দ্বিতীয় দিনে শুক্রবার সকাল ১০টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খ্রিস্টধর্মীয় উপাসনা ও যাজক অভিষেক অনুষ্ঠানে পোপ বক্তব্য রাখবেন। একই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে পোপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বিকালে ক্যাথেড্রাল পরিদর্শন করবেন এবং রমনায় প্রবীণ যাজক ভবনে পোপের সঙ্গে বাংলাদেশের বিশপদের বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে পোপ বক্তব্য রাখবেন। তার পর আর্চবিশপ হাউসের মাঠে শান্তির জন্য আন্তঃধর্মীয় ও আন্তঃমাণ্ডলিক সমাবেশে পোপ বক্তব্য রাখবেন। পোপ তার সফরের শেষ দিন শনিবার সকালে তেজগাঁওয়ে মাদার তেরেসা ভবন ব্যক্তিগতভাবে পরিদর্শন করবেন। তার পর তেজগাঁও গির্জায় যাজকবর্গ, ব্রাদার-সিস্টার, সেমিনারিয়ান ও নবিশদের সমাবেশে পোপ বক্তব্য রাখবেন। তিনি তেজগাঁওয়ে পুরনো গির্জা পরিদর্শন করবেন। বিকালে নটর ডেম কলেজে যুব সমাবেশে তিনি বক্তব্য রাখবেন। শনিবার ৫টার দিকে রোমের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। সফরকালে পোপ লা মেরিডিয়ান হোটেলে থাকবেন। ওই হোটেলে বিশাল মিডিয়া সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। পোপের সফর কভার করার জন্য প্রায় ৩০০ বিদেশি সাংবাদিক ঢাকায় আসছেন।

0 comments:

Post a Comment