Last update
Loading...

১০০ কোটি ডলার দিয়ে সৌদি প্রিন্সের মুক্তি

দুর্নীতির অভিযোগে আটক সৌদি প্রিন্স মিতেব বিন আবদুল্লাহকে ১০০ কোটি ডলারের বিনিময়ে মুক্তি দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় তিনি আটক ছিলেন। প্রিন্স মিতেব সৌদি কর্তৃপক্ষকে ১০০ কোটি ডলারের বেশি অর্থ প্রদান করতে সম্মত হলে তাকে বন্দিদশা থেকে মুক্তি দেয়া হয়। সংবাদ মাধ্যমগুলোতে বলা হয়েছে, এর মাধ্যমে দু’পক্ষ ‘গ্রহণযোগ্য সমঝোতায়’ এসেছে। খবর রয়টার্সের। এক সময় প্রিন্স মিতেবকে সৌদি সিংহাসনের অন্যতম দাবিদার হিসেবে বিবেচনা করা হতো। ৪ নভেম্বর বর্তমান ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদি আরবে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু করেন। সেই অভিযানে ২০০ জনেরও বেশি রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। প্রিন্স মিতেব ছিলেন তাদের অন্যতম। প্রিন্সেস নওফ বিনতে আবদুল্লাহ নামে মিতেবের এক বোন এক টুইটার বার্তায় তার মুক্তির কথা জানিয়ে বলেছেন, ‘সকল প্রশংসা আল্লাহর। তিনি আপনাকে নিরাপদে রাখবেন।’ প্রিন্স মিতেব সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের চাচাতো ভাই। মিতেব দেশটির অভিজাত বাহিনী ন্যাশনাল গার্ডের প্রধান ছিলেন। দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে রাজপরিবারের অনেক সদস্যকে আটক করা হয়।
মিতেব সেসব সদস্যদের মধ্যে রাজনৈতিকভাবে সবচেয়ে প্রভাবশালী ছিলেন। সৌদি আরবের প্রয়াত বাদশা আবদুল্লাহর ৬৪ বছর বয়সী এই পুত্রকে আটক করার অল্পক্ষণ আগে পদচ্যুত করা হয়। দুর্নীতিবিরোধী ওই অভিযানের প্রথম দিকে ১৭ জন প্রিন্স, চারজন মন্ত্রী ও সাবেক মন্ত্রী ও কয়েকজন শীর্ষ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের একটি বিলাসবহুল হোটেলে আটক করে রাখা হয়েছে। তাদের সবাইকে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তাদের সবার ব্যক্তিগত সম্পদও জব্দ করা হয়েছে। বিবিসি জানায়, প্রিন্স মিতেব ছাড়া আরও তিন ব্যক্তি সৌদি সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করেছেন। সম্প্রতি নিউইয়র্ক টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে যুবরাজ মোহাম্মদ বলেন, আটককৃতদের বেশিরভাগই তাদের মুক্তির জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এক ‘সমঝোতা’য় পৌঁছেছে। তিনি বলেন, ‘তাদের বিরুদ্ধে আমাদের কাছে যে নথিপত্র ছিল, তা তাদের দেখালে তাদের ৯৫ ভাগই তৎক্ষণাৎ সমঝোতার জন্য রাজি হয়ে যায়।’

0 comments:

Post a Comment