Last update
Loading...

ফরহাদ মজহারকে আদালতে নেয়া হবে: ডিবি

নিখোঁজের ১৯ ঘণ্টা পর যশোরের অভয়নগর থেকে উদ্ধার হওয়া কবি, সাহিত্যিক ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহারকে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে নেয়া হবে। মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, সার্বিক দিক বিবেচনা করে ফরহাদ মজহারকে আদালত নেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, ফরহাদ মজহারের স্ত্রী’র করা জিডি অনুযায়ী ভিকটিম হিসেবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া হবে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফরহাদ মজহারকে আদালতে সোপর্দ করা হবে। এরপর আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ডিবির এই যুগ্ম কমিশনার। সোমবার ভোর ৫টার পর শ্যামলির নিজ বাসা থেকে বের হবার পর নিখোঁজ হন ফরহাদ মজহার। তার নিখোঁজ হওয়া নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে আদাবর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়।
সোমবার রাত ১১টার দিকে যশোরেরে নওয়াপাড়া বেঙ্গল টেক্সটাইল মিলের সামনে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে তাকে উদ্ধার করে র‌্যাব। বাসটি খুলনা থেকে ছেড়ে আসে। পরে তাকে স্থানীয় অভয়নগর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে রাতেই কড়া প্রহরায় তাকে পার্শ্ববর্তী ফুলতলা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আজ সকাল ৯টায় যশোর থেকে ফরহাদ মজহারকে প্রথমে ঢাকার আদাবর থানায় পরে সেখান থেকে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়। এদিকে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধারের পর সোমবার রাত ১টার দিকে খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহমেদ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রাথমিকভাবে আমাদের মনে হয়েছে, তিনি ঢাকা থেকে স্বেচ্ছায় খুলনায় ভ্রমণ করেন। দৈনন্দিন ব্যবহারের জিনিসসহ তার সঙ্গে ব্যাগপত্র ছিল। তবে এখনই এ বিষয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত করে কিছু বলা যাবে না। তাকে ঢাকায় এনে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পুলিশের এ দাবি নাকচ করে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে ‘বাসার সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে তারা দেখেছেন, বাসা থেকে বের হওয়ার সময় তার হাতে কোনো ধরনের ব্যাগপত্র ছিল না।’ পরিবারের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, উদ্ধারের পর ফরহাদ মজহার পরিবারকে জানিয়েছেন- ‘সন্ধ্যার পর তার চোখের বাঁধন খোলা হয়’।

0 comments:

Post a Comment