Last update
Loading...

বৃটেনের প্রথম পুরুষ-মা জন্ম দিলেন কন্যা সন্তান

বৃটেনের প্রথম পুরুষ-মা জন্ম দিলেন এক কন্যা সন্তান। বর্তমানে ওই পুরুষ-মা ও তার কন্যা সুস্থ আছেন। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল। এতে বলা হয়েছে, হেডেন ক্রস নামের এই পুরুষ-মা জন্মেছিলেন মেয়ে হয়ে। পরে তিনি হিজড়া বিষয়ক হরমোনের চিকিৎসা থামিয়ে দিয়ে পুরুষে পরিণত হন। এক পর্যায়ে ফেসবুকে একজন স্পার্ম ডোনারের সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়। সেই ব্যক্তি তাকে স্পার্ম দিতে রাজি হন। তার কাছ থেকে স্পার্ম বা ডিম্বাণু নিয়ে তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দিলেন। জানুয়ারিতে ২১ বছর বয়সী হেডেন ক্রস নিজে অন্তঃসত্ত্বা এ ঘোষণা দেন। এ নিয়ে তখন বিশ্বজুড়ে সংবাদ শিরোনাম হয়। বিতর্ক সৃষ্টি হয়। তবে সব কিছুকে পিছনে রেখে গত ১৬ই জুন তিনি একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন বলে তার পরিবার নিশ্চিত করেছে। এর মধ্য দিয়ে তিনি হলেন বৃটেনের ইতিহাসে প্রথম কোনো পুরুষ-মা। এর আগে বৃটেনে এমন ঘটনার নজির পাওয়া যায় নি। বলা হয়েছে, বর্তমানে কন্যা সন্তান ও হেডেন ক্রস দু’জনেই সুস্থ আছেন। তার কন্যার নাম রাখা হয়েছে ট্রিনিটি লেই। তার জন্ম হয়েছে গ্লুসেস্টারশায়ারের রয়েল হাসপাতালের মাতৃমঙ্গল বিষয়ক শাখা ওমেনস সেনটারে। বুধবার তার কন্যা সন্তান জন্মের সনদ দেয়া হয়েছে। তাতে হেডেন ক্রসকে ওই কন্যার মা হিসেবে পরিচয় দেয়া হযেছে। তবে রেজিস্ট্রারে ওই কন্যার পিতার নামের স্থানটি ফাঁকা রয়েছে। উল্লেখ্য, প্রথমে হেডেন ক্রসের নাম ছিল পেইজি। কিন্তু তিনি জানুয়ারিতে জানান দেন যে, গত সেপ্টেম্বরে তিনি গর্ভ সঞ্চার করেছেন। তাই নাম পাল্টে হেডেন ক্রস নাম ধারণ করেছেন। তবে কার কাছ থেকে তিনি স্পার্ম ধার নিয়ে গর্ভ সঞ্চার করেছেন তা প্রকাশ করেন নি। এটুকু বলা হয়েছে যে, ওই স্পার্ম তার ধরের দরজায়ই পৌঁছে দেয়া হয়েছে। শুক্রবার তার দাদী পাম এজওয়ার্থ নিশ্চিত করেছেন হেডেন ক্রসের মা ক্রিস্টিন এজওয়ার্থ তার পঞ্চম সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। তার মাত্র ৪৮ ঘন্টা আগে হেডেন ক্রস নিজের সন্তানের মা হয়েছেন। পাম বলেছেন, আমি খুশিতে উদ্বেলিত। কারণ মাত্র ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই আমি দাদী হয়েছি এবং একই সঙ্গে গ্রান্ডমাদার হয়েছি।

0 comments:

Post a Comment