Last update
Loading...

বাংলাদেশ সফর অনিশ্চিত স্মিথ-ওয়ার্নারদের

আজ সকালে স্মিথ, ওয়ার্নাররা যখন ঘুম থেকে উঠবেন, তাদের সবার পরিচয় তখন একই- বেকার! আনুষ্ঠানিকভাবে তারা আর অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের ক্রিকেটার নন। বোর্ডের সঙ্গে তাদের আগের চুক্তির মেয়াদ শুক্রবার রাতেই শেষ হয়ে গেছে। নতুন চুক্তি না হওয়ায় ক্রিকেটাররা আর বেতন পাবেন না। আর্থিক বিষয় নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে খেলোয়াড়দের দ্বন্দ্বের কোনো সমাধান না হওয়ায় গভীর সংকটে পড়েছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। দু’পক্ষই নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকায় আগস্টে অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফর নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। শুধু বাংলাদেশ সফর নয়, এ বছর অস্ট্রেলিয়ার সব সিরিজই পড়ে গেছে অনিশ্চয়তার মধ্যে। নতুন কেন্দ্রীয় চুক্তি নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) সঙ্গে দেশটির ক্রিকেটারদের সংগঠনের (এসিএ) বিরোধ চলছিল অনেক দিন ধরেই। কাল রাতে চুক্তি নবায়নের সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতায় পৌঁছতে পারেনি দু’পক্ষ। এ সংকটকে অসি ক্রিকেটের কেয়ামতের দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে দেশটির গণমাধ্যম। পরিস্থিতি আসলেই ভীষণ জটিল হয়ে উঠেছে। বোর্ডের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে, নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে নতুন চুক্তি নিয়ে সমঝোতার কোনো সম্ভাবনা নেই। এ জন্য তারা দায়ী করছে এসিএকে। অন্যদিকে ক্রিকেটাররা জানিয়েছেন, বৃহত্তর স্বার্থে চাকরি হারিয়ে ‘বেকার’ হয়ে যেতেও আপত্তি নেই তাদের। আগের চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ায় আজ থেকে নারী-পুরুষ মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রায় ২৩০ জন ক্রিকেটার বেকার হয়ে যাবেন।
এ মুহূর্তে একটি বিশেষ চুক্তিতে মেয়েদের বিশ্বকাপে খেলছে অস্ট্রেলিয়া দল। বিশ্বকাপের পর সেই চুক্তিও শেষ হয়ে যাবে। ছেলেদের ক্রিকেটে আজ থেকেই সবার বেতন বন্ধ হয়ে যাবে। সামনেই রয়েছে অস্ট্রেলিয়া ‘এ’ দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। এরপর দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ১৮ আগস্ট বাংলাদেশে আসার কথা অস্ট্রেলিয়া মূল দলের। সেপ্টেম্বরে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ ছাড়াও এ বছর রয়েছে অ্যাশেজ। বোর্ডের বিরুদ্ধে শুধু জাতীয় দল নয়, ঘরোয়া লীগের ক্রিকেটাররাও বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন। ফলে বিকল্প জাতীয় দল গড়াও সম্ভব হবে না বোর্ডের পক্ষে। ক্রিকেটাররা যেন আইসিসি অনুমোদিত কোনো দেশের টি ২০ লীগে খেলতে না পারে, সেই ব্যবস্থা করবে সিএ। অন্যদিকে ক্রিকেটাররা তাদের মেধাস্বত্ব আর ব্যবহার করতে দেবে না বোর্ডকে। পাল্টাপাল্টি এসব উদ্যোগে দু’পক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ফলে ধারণা করা হচ্ছে, সমাধানের একটি পথ ঠিকই বেরিয়ে আসবে। সেটিই সবার কাম্য। চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও নতুন সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করার জন্য ১৪ জুলাই পর্যন্ত সময় পাবেন ক্রিকেটাররা। এএফপি।

0 comments:

Post a Comment