Last update
Loading...

ফুলবাড়ীয়ায় বাড়ীঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাট : আহত ৩

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার বালিয়ান ইউনিয়নের বৈদ্যবাড়ীতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের বাড়ী ঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীদের প্রকাশ্য হত্যার হুমকিতে ৬ দিন ধরে ঘরবাড়ী ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ১২ সদস্যের পরিবারটি। উপজেলার বৈদ্যবাড়ী হুগলিপাড়া গ্রামের হযরত আলীর ৭ মেয়ে নিয়ে সুখেই কাটছিল সংসার। তৃতীয় মেয়ে লাভলী বেগমের নামে ৭ শতাংশ জমি লিখে দেয়ার পর থেকে কাল হয়ে যায় তার ভাই তারা মিয়া। লাভলী বেগমের স্বামী বায়িায়ান ইউনিয়নের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলতাব আলী ফকিরের পুত্র আঃ আজিজ। তারা মিয়া তার স্ত্রী মালেকা খাতুন ছেলে ওয়াসিম তার স্ত্রী রূপালী বেগমের অত্যাচারের মাত্রা বেড়ে যায় হযরত আলীর সংসারে উপর। ঘরের সাথে ঘর হওয়ায় সব কিছু মুখ বুজে সহ্য করে হযরত আলী তার ৭ মেয়ে। ৭ মেয়ের মধ্যে ৫ মেয়ে ঢাকায় গার্মেন্টেসে চাকরী করে। শাবানা খাতুন (১০) হোছনা খাতুন (৮) কে নিয়ে বাড়ীতেই বসবাস করে হযরত আলী। ঈদে মেয়ে ও তার জামাইরা বাড়ীতে আসলে ঈদের দিন বিকালে মারপিট করে তারা মিয়ার স্ত্রী পুত্ররা। ঈদের পরের দিন রাত ৮ টার দিকে তারা মিয়া ১০/১২ জন ভাড়াটিয়া এনে ঘরবাড়ী ভাংচুর করে নগদ টাকা নিয়ে যায়। এ সময় আহত হয় হযরত আলীর মেয়ের জামাতা হারুণ অর রশিদ, মেয়ে শাবানা খাতুন (১০) ও হোসনা খাতুন। ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের হুমকিতে ৬ দিন ধরে ঘরবাড়ী ছাড়া ১২ সদস্যের অসহায় পরিবারটি। হযরত আলী জানান, আমার কোন ছেলে সন্তান নাই। জমি আছে ২২ শতাংশ। ৭ মেয়ের মধ্যে তৃতীয় মেয়ের নামে ৭ শতাংশ জমি লিখে দেয়ার পর থেকে আমার পরিবারের উপর নানা অত্যাচার করছে তারা মিয়ারা। বাধা দিতে গেলেই হত্যার হুমকি দেয়। বাড়ীতে গেলে পিটিয়ে বের করে দেয়। দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখায়। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর আমি দুই অবুঝ সন্তান নিয়ে নিজ বাড়ীতে বসবাস করছি। তারা মিয়া ও তার ভাড়াটিয়াদের অব্যাহত হত্যার হুমকিতে মানুষের বাড়ীতে বাড়ীতে রাত্রী যাপন করছি। হযরত আলী মেয়ের জামাতা আঃ আজিজ জানান, আমার পিতা বালিয়ান ইউনিয়নের সাবেক মুক্তিযোদ্দা কমান্ডার ছিলেন। শ্বশুড় আমার স্ত্রীর নামে জমি লিখে দেয়ার পর শ্বশুড়কে নিয়ে বাড়ীতে বসবাস করছি। জমি লিখে দেয়ার পর থেকে তাদেরকে ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদের জন্য নানা ষড়যন্ত্র করছে তারা মিয়া। এবার ঘরবাড়ী ভাংচুর করে লুটপাট করে আমাদেরকে পিটিয়ে ঘরবাড়ী থেকে বের করে দিয়েছে। হযরত আলীর মেয়ে লাভলী আকতার জানান, আমরা গার্মেন্টেসে চাকরী করে কষ্টার্জিত টাকায় বাড়ীঘর করেছি। সেই বাড়ীঘর ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। নিয়ে গেছে নগদ টাকা স্বর্নালংকার। দুই ছোট বোন নিয়ে আমার বৃদ্ধ পিতা মানুষের বাড়ী বাড়ী রাত্রী যাপন করছে। আমরা এ ঘটনার বিচার। নিজের বাড়ীতে শান্তিতে বসবাস করতে চাই।

0 comments:

Post a Comment