Last update
Loading...

উজিরপুরে রাস্তার মাঝেই মা-মেয়ের শ্লীলতাহানি

বরিশালের উজিরপুর পৌর এলাকায় মা-মেয়েকে শ্লীলতাহানি ও মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার বিকালে শ্লীলতাহানির শিকার ওই স্কুল ছাত্রীর মা নুরজাহান বেগম বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় এবং রোববার (২ জুলাই) সকালে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ঝুমুর বালার নিকট অভিযুক্ত চার বখাটের নাম উল্লেখ করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তারা হলেন, পৌর এলাকার উত্তর রাখালতলা গ্রামের বাবুল বেপারীর বখাটে পুত্র শাওন বেপারী (২৩),হানিফ হাওলাদারের বখাটে পুত্র সেন্টু (২৪),মিন্টু ও লিটন হাওলাদার। স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পৌর এলাকার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মকবুল হাওলাদারের শিশু কন্যা ও শেরে বাংলা বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনির ছাত্রীকে (১৩) দীর্ঘদিন ধরে একই ওয়ার্ডের উত্তর রাখালতলা গ্রামের বাবুল বেপারীর বখাটে পুত্র শাওন প্রেম প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। প্রস্তাব প্রত্যাখান করলে বখাটে শাওন ওই স্কুল ছাত্রীকে প্রতিদিন স্কুলে ও প্রাইভেট পড়তে যাওয়া আসার পথে ইভটিজিং শুরু করে। পরে বিষয়টি ওই ছাত্রী তার মায়ের কাছে জানায়। কিন্তু ইজ্জতের কথা ভেবে ওই ছাত্রীর পরিবার বিষয়টি নিয়ে নিশ্চুপ হয়ে যায়।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ জুন বিকাল ৩টার দিকে বখাটে শাওনদের বাড়ির পাশ্ববর্তী রাস্তা দিয়ে ওই স্কুল ছাত্রী তার মায়ের সাথে নানা বাড়ি যাচ্ছিল। পথিমধ্যে উত্তর রাখালতলা এলাকা অতিক্রমকালে বখাটে শাওনসহ তার সহযোগী সেন্টু ওই স্কুল ছাত্রীর হাত ধরে টানাহেচড়া ও শ্লীলতাহানি করে। তখন ওই ছাত্রীর মা প্রতিবাদ করলে শাওন ও সেন্টু তাকে মারধর করে। এ সময় তাদের ডাক-চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই পরিবারটি পুরোপুরি আতংকগ্রস্থ হয়ে পরে। বখাটেদের আতংকে ওই ঘটনার দুই দিন পরে ২৯ জুন ওই ছাত্রীর মা ও তার ভাই একসাথে কালিরবাজার যায়। এ সময় পূর্বের হামলাকারী বখাটে সেন্টুর সহোদর লিটন এবং ওই এলাকার চিহ্নিত মাদকসেবী-বিক্রেতা মিন্টু হাওলাদার তাদেরকে বেধরক মারধর করে। পরে স্থানীয়রা ধাওয়া দিলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করলে উজিরপুর মডেল থানা পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলেন। উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0 comments:

Post a Comment