Last update
Loading...

কুষ্টিয়ায় ২২ ঘণ্টার 'অপারেশন ট্রেপিড পাঞ্চ' সমাপ্ত

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা শহরের বামনপাড়া এলাকার জঙ্গি আস্তানায় 'অপারেশন ট্রেপিড পাঞ্চ' সমাপ্ত ঘোষণা করেছে পুলিশ। শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় এক প্রেসব্রিফিংয়ে ২২ ঘণ্টার এ অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন খুলনার অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমান। তিনি জানান, অভিযান শতভাগ সফল হয়েছে। ১০ কেজি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় এ ধরণের অভিযান পরিচালনা করতে গিয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে ভেড়ামারায় কোন প্রকার রক্তপাত ছাড়াই অভিযান সফল হয় বলে জানান খুলনা রেঞ্চের অতিরিক্ত ডিআইজি। কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান জানিয়েছেন, শুক্রবার দিনগত রাত ১২টার দিকে কাউন্টার টেরিরেজমের একটি ইউনিটের তথ্যর ভিত্তিতে খবর পায় কুষ্টিয়া ভেড়ামারা তালতলা মসজিদের পাশে একটি বাড়িতে জঙ্গিরা অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের এডিসি আব্দুল মান্নানসহ কুষ্টিয়া ভেড়ামারা থানা পুলিশ, কুষ্টিয়া পুলিশ ও ডিবি পুলিশের একটি যৌথ টিম সেখানে অবস্থান নেয়। পুলিশ জানায়, রাত ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট যৌথভাবে বাড়িতে অভিযান চালালে এক নারী সুইসাইড ভেস্ট পরিহিত অবস্থায় পুলিশের ওপর হামলার চেষ্টা চালায়। এ সময় পুলিশ সদস্যরা তা বিস্ফোরিত হওয়ার আগেই তাকে ধরে ফেলে বলে পুলিশ দাবি করেছে। পরে পর্যায়ক্রমে আরও দুইজন মহিলাকে আটক করতে সক্ষম হয় তারা। পুলিশ জানায়, জঙ্গি আস্তানার বাড়ির মালিকের নাম নাসিমা খাতুন। প্রায় দুই মাস আগে জঙ্গিরা বাড়িটি ভাড়া নেয়। আটক নারীদের মধ্যে গুলশানে হামলা চালানো নব্য জেএমবির বর্তমান আমির আইয়ুব বাচ্চু ওরফে সজীবের স্ত্রী তিথি ও নব্য জেএমবির সেকেন্ড ইন কমান্ড তালহার স্ত্রী সুমাইয়া এবং ভেড়ামারা উপজেলার ঠাকুর দৌলতপুর এলাকার আরমানের স্ত্রী টলি আরা। এছাড়া তিথির ৫ মাস বয়সী কন্যা আফিয়া হাসান ও টলির ৬ বছর বয়সী কন্যা নোভাকেও উদ্ধার করেছে পুলিশ। বিকালে বাড়ির মালিক নাসিমা বেগমকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে। পুলিশ জানায়,  শনিবার দুপুর ২ টার দিকে খুলনা থেকে ক্রাইম সিনের ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে। বিকাল পৌনে ৫ টার দিকে ঢাকা থেকে বোম ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা পৌঁছায়। কয়েক দফায় বাড়িটি রেকি করার পর বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ওই বাড়িতে অভিযান শুরু করে। অভিযান চলাকালে সন্ধ্যা ৬টা ৮ মিনিটে,৬ টা ৪৬ মিনিটে, রাত ৮ টা ৩৬ মিনিটে এবং রাত ৮ টা ৫০ মিনিটে চারটি শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। তবে অভিযান শুরুর আগে ওই জঙ্গি আস্তানার চারপাশে ৫০০ মিটার এলাকাজুড়ে ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন। ফলে কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ভেড়ামারা থানার ওসি নূর হোসেন খন্দকার বলেন, যে বাড়ি ঘরে অভিযান তার মালিক মাসুদ নামে এক ব্যাক্তি। তিনি বয়স্ক। দু'মাস আগে তার স্ত্রী নাসিমা মাসিক ১২শ’ টাকায় আরমান-টলি দম্পতিকে বাড়িটি ভাড়া দেন। তারা স্বামী-স্ত্রী থাকার কথা বললেও এতে কোনও পুরুষ সদস্য পাওয়া যায়নি। সিটিটিসির এক কর্মকর্তা বলেন, আমাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্য ছিল, ঈদের আগে জঙ্গিরা ভেড়ামারাতে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে সংগঠিত হচ্ছে। তখন থেকেই এই এলাকায় আমাদের নজরদারি বাড়ানো হয়। তিনি বলেন, তথ্য নিশ্চিত হয়ে এই বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। এখানে নারী জঙ্গিরা সবসময় থাকে। তবে পুরুষরা আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিল। তিনি আরও বলেন, জঙ্গিদের মধ্যে আরমান একজন। এটি তার নকল নাম হবে, ধারণা করছি। সে বাড়িটি ভাড়া নিয়েছিল। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। জানা গেছে, মৌলভীবাজারের বড়হাটে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে নব্য জেএমবির প্রধান মইনুল ওরফে মুসা নিহত হয়। মুসা নিহত হওয়ার পর আইয়ুব বাচ্চুকে নব্য জেএমবি প্রধান করা হয়েছে। আইয়ুব বাচ্চু ঢাকার একটি ভালো কলেজে লেখাপড়া করতেন। পরে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। তবে পড়াশোনা শেষ করার দুবছর আগেই তিনি জঙ্গিবাদে যুক্ত হয়ে ঘর ছাড়েন। পুলিশ জানিয়েছে, আইয়ুব বাচ্চুর বয়স ২৬ থেকে ২৭ বছর। তিনি নব্য জেএমবির তৃতীয় বা চতুর্থ সারির নেতা ছিলেন। মুসা নিহত হলে তিনি দলের হাল ধরেন।

0 comments:

Post a Comment