Last update
Loading...

ডিমলায় জমি সংঘর্ষে প্রাণ গেল হালচাষ শ্রমিকের

নীলফামারীর ডিমলায় জোরপূর্বক জমি নিয়ে সংঘর্ষে এক হালচাষের শ্রমিক নিহত হয়েছেন। সোমবার সকালে নিহত ওই কায়িম শ্রমিকের নাম ফজলে রহমান (৫৫)। তিনি নাউতরা ইউনিয়নের নাউতরা গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র। ফজলে রহমান কায়িম শ্রমিক হিসেবে বিভিন্ন স্থানে আমন ধানের চারা লাগানোর কাজ করত। আহত অবস্থায় তাকে ডিমলা হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়। স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার সকাল ৭টার দিকে নাউতরা ইউনিয়নের নাউতরা বাজার সংলগ্ন বোরহান উদ্দিনের জমি দখল করে আনিছুর রহমান হালচাষ করছিল। উক্ত জমিনে আমন ধানের চারা লাগানের জন্য ফজলে রহমানকে নিয়ে যায়। উক্ত জমিতে আনিছুর রহমানের সঙ্গে বোরহান উদ্দিনের সংঘর্ষে বাঁধে। এতে উভয় পরিবারের ৯জন আহত হয়েছে। আহতের মধ্যে কায়িম শ্রমিক ফজলে রহমানকে হাসপাতাল নেয়ার পথে মারা যান। এ ঘটনায় আনিছুর রহমান (৩৮), আনিছুর রহমানের স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৩৫), জুয়েল রানা (৪৫), নযন ইসলাম (২২) ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। অপরদিকে বোরহান উদ্দিনের পরিবারের ৫জন সদস্য বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। বোরহান উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, উক্ত জমিটি আমার কেনা। উক্ত জমিতে জোরপূর্বক দখল করতে গিয়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে তার পরিবারের ৫জন সদস্য জলঢাকা ও রংপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আহতদের মধ্যে আনিছুর রহমান ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগমকে ডিমলা হাসপাতাল থেকে রংপুর হাসাপাতালে স্থানান্তর করা হয়। রংপুর নাউতরা ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম লেলিন বলেন, বিরোধপূর্ণ জমির সীমানা নিয়ে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত হয়েছে। ডিমলা থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, জমি নিয়ে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহত হওয়ার পর সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লাশ হাসপাতালে রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলার মর্গে প্রেরণ করা হবে। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

0 comments:

Post a Comment