Last update
Loading...

পল্লবীতে শিশু গৃহকর্মীকে নির্মম নির্যাতন

পল্লবীর ডিওএইচএস এলাকায় গৃহকর্ত্রীর নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছে সাবিনা ইয়াসমিন (১১) নামে এক শিশু গৃহকর্মী। তাকে গুরুতর অবস্থায় রোববার সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। ওই শিশুটি জানায়, সে পল্লবী থানাধীন মিরপুর ডিওএইচএসে একটি বাসায় ৬ মাস আগে কাজে যোগ দেয়। এরপর থেকেই গৃহকর্ত্রী তাকে বেধড়ক মারধর করত। কখনও খুন্তির ছ্যাঁকা দিতেন। কখনও রুটি বেলার বেলুন দিয়ে পেটাতেন। শনিবার রাতে গৃহকর্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনকে একটি ডিমপোচ করতে বলেন। সে ঠিকমতো ডিমপোচ করতে না পারায় গৃহকর্ত্রী তাকে বেলুন দিয়ে বেধড়ক পেটান। এতে সে গুরুতর আহত হয়। তার দু চোখের নিচে জখম হয়। সে জানায়, রোববার সকাল ১১টার দিকে বাড়ির দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাট থেকে বেলকনি দিয়ে বেরিয়ে নিচে নেমে পালিয়ে আসে।
তাকে উদ্ধার করা জামাল উদ্দিন জানান, মিরপুর ১২ নম্বরে সাত্তার মোল্লা রোডের মাথায় এসে সাবিনা ইয়াসমিন তার কাছে আশ্রয় চায়। এরপর সাবিনা ইয়াসমিনের কাছ থেকে ঘটনা শুনে তিনি তাকে নিয়ে পল্লবী থানায় যান। এরপর পল্লবী থানা পুলিশ ওই শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে পল্লবী থানার এসআই প্রবীর রঞ্জন ধর বলেন, পল্লবী থানার ওসির নির্দেশে তিনি মেয়েটিকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসেছেন। এর বেশি তিনি কিছুই জানেন না। এ ব্যাপারে পল্লবী থানার ওসি দাদন ফকিরের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। সাবিনা ইয়াসমিন টাঙ্গাইলের ধনবাড়ি উপজেলার ক্যারামজালি গ্রামের বাদল মিয়ার মেয়ে। চার বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়।

0 comments:

Post a Comment