Last update
Loading...

মন্ত্রীর হুংকার: তোকে এখানেই গণপিটুনি দেব

ভারতে জিএসটি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা তুঙ্গে। এক দেশ, এক কর প্রথার আলোকে কর ব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে কথা উঠেছে বিভিন্ন প্রদেশে। এরই মধ্যে সম্প্রতি বিধান সভায় জিএসটি নিয়ে বিতর্কের জেরে এক সদস্যকে গণপিটুনি দেয়ার হুমকি দিয়েছেন এক মন্ত্রী। এ নিয়ে বিধান সভার বাইরে ও ভেতরে চলছে তুমুল উত্তেজনা, আলোচনা ও সমালোচনা। ভারতের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, বিধানসভায় জিএসটি নিয়ে আলোচনার সময় মেজাজ হারিয়ে ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা দেবেন্দর রানাকে আক্রমণ করেন জম্মু ও কাশ্মীরের মন্ত্রী ইমরান আনসারি। তিনি বলেন, 'আমি আপনাকে এখানেই গণপিটুনি দিতে পারি।' ৩০ জুন মধ্যরাত থেকে দেশে জিএসটি কর ব্যবস্থা চালু হয়েছে। তবে অশান্ত জম্মু ও কাশ্মীরে এখনও পর্যন্ত জিএসটি চালু হয়নি। সেখানে জিএসটি বসানোর বিরুদ্ধে বিধান সভায় প্রশ্ন তুলেন দেবেন্দর রানা।তিনি বলেন, 'বর্তমান জিএসটি প্রথায় অনেক গলদ রয়েছে। রাজনীতিকে সরিয়ে রেখে প্রত্যেকের উচিত রাজ্য ও সেখানকার সাধারণ মানুষের পক্ষে যা ভাল, সেটাকেই মেনে নেয়া। তাই জম্মু ও কাশ্মীরে পণ্য ও পরিষেবা কর না চালু করাই সঠিক সিদ্ধান্ত হবে।' রানার বিরোধিতা করে বিধানসভায় সরব হন সেই রাজ্যের তথ্য প্রযুক্তি, প্রযুক্তিগত শিক্ষা ও যুব কল্যাণ ও ক্রীড়া মন্ত্রী আনসারি। তিনি বলেন, 'রানা দ্বিচারিতা করছেন। নিজে ব্যবসার খাতিরে জিএসটি-কে মেনে নিয়েছেন। সমস্ত পণ্য বিক্রি করছেন নতুন কর ব্যবস্থা মেনেই। অথচ বিধানসভায় জিএসটি-র বিরোধিতা করছেন।' তবে এমন অভিযোগের বিরুদ্ধে সরব হয়ে ওঠেন ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা রানা। তার দাবি, তিনি কোনও অন্যায় করেননি। কর ফাঁকিও দেননি। শাসক দল ও বিরোধী পক্ষের মধ্যে এসময় হট্টগোল বেধে গেলে ইমরান আনসারি বলে ওঠেন, 'আমি এখানেই আপনাকে গণপিটুনি দিতে পারি। আপনার বেআইনি ব্যবসার খবর খুব ভালোভাবেই জানা আছে। আপনার থেকে বড় চোর আর নেই। নইলে মবিল বিক্রি করে কীভাবে এমন বিপুল অর্থের মালিক হয়ে উঠলেন?' আনসারির এমন মন্তব্যের পরই তুমুল বিতর্ক শুরু হয়ে যায়। শেষমেশ ডেপুটি স্পিকার নাজির আহমেদ গুরেজি পরিস্থিতি সামাল দেন।

0 comments:

Post a Comment