Last update
Loading...

রাজার ৫০০০ শয্যাসঙ্গী

স্পেনের সাবেক রাজা হুয়ান কার্লোসের প্রেমিকা ৫০০০। তাদেরকে তিনি শয্যাসঙ্গী করেছেন। এমনকি তিনি প্রয়াত প্রিন্সেস ডায়ানার ভালোবাসা পাওয়ারও চেষ্টা করেছিলেন। তার সঙ্গে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। এসব কথা ‘হুয়ান কার্লোস: দ্য কিং অব ৫০০০ লাভারস’ শীর্ষক বইয়ে লিখেছেন সামরিক ইতিহাসবেত্তা মার্টিনেজ ইংলেস। এ খবর দিয়ে সচিত্র রিপোর্ট প্রকাশ করেছে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল। স্পেনের বর্তমান রাজা ফেলিপ। তার পিতা হুয়ান কার্লোস। মার্টিনেজ ইংলেস তার বইয়ে লিখেছেন, রাজা ফেলিপের মা রাণী সোফিয়ার সঙ্গে বিয়ের পরও তার পিতা হুয়ান কার্লোস কয়েক শ’ নারীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক স্থাপন করেছেন। ওই বইয়ে হুয়ান কার্লোসকে সেক্স এডিক্ট হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। সাবেক এই রাজার বয়স এখন ৭৯ বছর। বলাবলি আছে, তিনি যেসব নারীকে বাগে এনেছিলেন তাদের মধ্যে প্রিন্সেস ডায়ানা অন্যতম। এখন থেকে ৫ বছর আগে স্পেনের একজন লেখক লিখেছেন, হুয়ান কার্লোস ১৫০০ নারীর সঙ্গে শয্যা গ্রহণ করেছেন। কিন্তু নতুন যে বইটির কথা বলা হচ্ছে তার লেখক মার্টিনেজ ইংলেস স্পেনের সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত একজন পদস্থ কর্মকর্তা। তিনি হুয়ান কার্লোসের যৌন আসক্তির বিস্তারিত তুলে ধরেছেন। তিনি লিখেছেন, মাত্র ৬ মাস সময়ের মধ্যে সাবেক রাজা কার্লোসের ছিল ৬২ জন প্রেমিকা। ১৯৭৬ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত সময়কে তার প্রেমময় সময় বলা হয়। এ সময়ে বিছানায় তিনি ২১৫৪ জন নারীর সঙ্গ ভোগ করেছেন। ২০০৫ থেকে ২০১৪ সালের মধ্যকার সময়টাকে তার জন্য ‘শীতকালীন সময়’ বলা হয়। এ সময়ে তার বয়স ছিল ৬৭ থেকে ৭৬ বছর। এ সময়ে তার প্রেমিকার সংখ্যা আস্তে আস্তে কমে আসতে থাকে। মার্টিনেজ ইংলেস লিখেছেন, এ সময়ে তিনি ১৯১ জন বিভিন্ন প্রেমিকার সঙ্গে শয্যা গ্রহণ করেছেন। তিনি যখন স্পেনের মিলিটারি একাডেমিতে ছিলেন তখন সাবেক রাকা কার্লোসের সঙ্গে ৩৩২ জন নারীর যৌন সম্পর্ক ছিল। মার্টিনেজ ইংলেস লিখেছেন, হুয়ান কার্লোসের সুপরিচিত প্রেমিকাদের যদি একটি তালিকা করা হয় তাহলে তা হয়ে উঠবে আইসবার্গের মতো বিশাল। উল্লেখ্য, এসব তথ্য প্রকাশ হওয়ায় সাবেক এ রাজার ভাবমূর্তিতে কোনো প্রভাব ফেলবে না। কারণ, তিনি লজ্জা পেতে জানেন না। এ নিয়ে অনেক বছর ধরে সমালোচনা আছে। ব্যাংকিং খাতে স্পেনের অর্থনীতিতে যখন ধস নামে তখনই তার জনপ্রিয়তা কমতে থাকে। তিনি নিজেকে একনায়কের মতো উপস্থাপন করতেন। তিনি শিকার করতে ভালোবাসতেন। স্কি খেলতেন। প্রমোদতরী ইয়াটে করে ঘুরতে পছন্দ করতেন এবং নারীদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ককে ভালোবাসতেন। তিনি যে নারীভোগী তা স্পেনের মাদ্রিদের রাজ পরিবারের সবার কাছে এক ওপেন সিক্রেট। একবার তিনি সুটকেস গোছাতে থাকেন। স্ত্রী সোফিকে বলেন, তিনি টোলেডোতে শিকারে যাচ্ছেন। তার সঙ্গীরা সবাই পুরুষ। সেখানে সোফিকে নিলে তিনি বিরক্ত বোধ করতে পারেন। কিন্তু রাতের মধ্যভাগে সন্তানদের নিয়ে সেখানে গিয়ে হাজির স্ত্রী সোফি। তিনি রাজা হুয়ান কার্লোসকে সারপ্রাইজ দিতে সেখানে গিয়েছিলেন। সেখানে দরজা ঠেলে ভেতরে প্রবেশ করে দেখেন তার স্বামী অন্য নারীর সঙ্গে। তিনি হলেন মন্টিয়েল। এসব কিছুর পরেও তার পুরো পরিবার তাকে এ পথ থেকে সরে আসতে উৎসাহিত করে নি। মার্টিনেজ ইংলেস লিখেছেন, কার্লোসের বয়স যখন ১৬ বছর তখন তার জীবনে প্রথম প্রেমিকা আসে। ৬৬ বছর বয়সে শেষ রক্ষিতা আসেন। তিনি হলেন জার্মানিতে জন্ম নেয়া বিচ্ছেদপ্রাপ্ত কোরিনা জু সাইন-উইটজেনস্টেইন। রক্ষিতার প্রসঙ্গ যখন আসতো তখন তিনি কোনো বাছ বিচার করতেন না। মার্টিনেজ ইংলেস বলেছেন, রাজকীয় বিছানায় কার্লোস দু’ধরনের নারীকে নিতেন। তিনি ২৪ ঘণ্টাই সরবরাহ পেতেন অভিনেত্রী, তারকা, সংগীত শিল্পীদের। এর বাইরে ছিলেন বিভিন্ন সুন্দরী। তাদের আবার বেশির ভাগই বিদেশি। এসব কাজে তিনি ব্যবহার করতেন গ্রামের বাড়ি, ব্যক্তিগত এপার্টমেন্ট ও মাদ্রিদের চারপাশের হোটেলগুলো। কার্লোসের যৌন জীবনকে লেখক মার্টিনেজ ইংলেস কয়েকটি ভাগে ভাগ করেছেন। প্রথমত ১৯৫৪ সালের গ্রীষ্ম থেকে ১৯৫৫ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এ সময়টাকে প্রাপ্তবয়স্ক সময় বলা হতো। প্রথমেই তিনি শিকার করেন ইতালির সাবেক এক রাজার কন্যা মারিয়া গাব্রিয়েলা ডি সাবোয়া’কে। এর দু’বছর পরে তিনি স্পেনের মিলিটারি একাডেমিতে অফিসার পদে যোগ দেন। সেখানে তিনি পরিচিত ছিলেন ক্যাডেট হুয়ানিতো নামে। সেখানে তিনি পেয়ে যান ৩৯৪ জন প্রেমিকা। ১৯৫৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৫৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি ছিলেন স্পেশাল মিলিটারি একাডেমিতে। তখন কার্লোস একজন টগবগে যুবক। এ সময়ে তিনি ২৩২ জন নারীকে শয্যাসঙ্গী করেন। ১৯৬০ থেকে ১৯৬২ সাল পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় পিরিয়ডে তার শিকার প্রেমিকার সংখ্যা বাড়তে থাকে। এ সময় তার প্রেমিকা ছিল ৪০৩ জন। কিন্তু পরের ৬ বছর তা কমে যেতে থাকে। কমতে কমতে তা দাঁড়ায় ৩৩৬। কেন এমনটা হয়েছে? কারণ, তখন তিনি বিয়ে করেছেন এবং তিন সন্তানের জনক হয়েছেন। এরপরেই তিনি ক্রাউন প্রিন্স হন ১৯৬৯ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত। এ সময়ে তার প্রেমিকা ছিলেন ৪৬৮ জন। ১৯৭৬ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ছিল তার শেষ সময়। এ সময়ে তাকে ক্ষমতা থেকে নেমে যেতে হয়। এ সময়ে তার শিকার হন ২৯৫৩ জন নারী।

0 comments:

Post a Comment