Last update
Loading...

আগামী নির্বাচনেও প্রার্থী হচ্ছেন অর্থমন্ত্রী মুহিত

আগামী নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। শুক্রবার নির্বাচনী এই এলাকার চা শ্রমিকদের মধ্যে অর্থ ও খাদ্য সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি ফের প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন এবং ভোটও চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আগামীতে এ আসনে আমিই যে প্রার্থী হচ্ছি তা শতভাগ নিশ্চিত।’ উল্লেখ্য, এর আগে তিনি আর নির্বাচন করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। সকালে সদর উপজেলা কমপ্লেক্সে চা শ্রমিকদের মধ্যে অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন অর্থমন্ত্রী। উপজেলা সমাজসেবা অধিদফতরের ‘চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচি’র আওতায় এ সহায়তা প্রদান করা হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাইজার মো. ফারাবি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমানসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। খাদ্য সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো আছিই। তবে দাঁড়াব কিনা বলতে পারছি না।’ প্রার্থী হচ্ছেন এটা কতভাগ নিশ্চিত এমন প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শতভাগ ধরে নিতে পারেন।’ গত এপ্রিল মাসে সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘আই উইল রিটায়ার ইন টু থাউজ্যান্ড এইটটিন। আই থিংক ইট উইল বি গুড টাইম। দ্যাট টাইম আই উইল বি এইটি ফাইভ’ (আমি ২০১৮ সালে অবসরে যাব। আমি মনে করি, এটা একটা ভালো সময়। তখন আমার বয়স হবে ৮৫)। এভাবেই মন্ত্রিত্ব ছেড়ে নিজের অবসরে যাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর আগে গত বছরের ৫ জুন সিলেটের উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন নিয়ে আয়োজিত বৈঠকে অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ২০১৯ সালে তিনি রাজনীতি থেকে বিদায় নেবেন।
সেই অনুযায়ী আগামী বাজেটই হবে তার শেষ বাজেট। সে সময় তিনি তার উত্তরসূরি হিসেবে ভাই ড. আবদুল মোমেনের কথা বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, মোমেন এলাকায় কাজ করছে তবে ভবিষ্যতে কি হয় তা বলা যায় না। গত মে মাসেই সিলেটে গুঞ্জন ওঠে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সিলেট-১ আসন থেকে প্রার্থী হচ্ছেন। এমন গুঞ্জনের পর ৩০ মে এক বেসরকারি টিভিতে দেয়া সাক্ষাৎকারে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘সিলেট-১ আসনের বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রার্থী হওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। যদি সত্যি সত্যিই তিনি প্রার্থী হন তাহলে আরও একবার নির্বাচনী লড়াইয়ে নামব আমি। না হলে আর না।’ সবশেষ শুক্রবার সিলেটে প্রার্থী নিজের প্রার্থিতার বিষয়ে শতভাগ নিশ্চিয়তা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এদিকে প্রার্থিতা ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রার্থী হবেন এটা খুশির খবর। দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা যাকেই মনোনয়ন দেবেন তার জন্যই কাজ করবে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। অর্থমন্ত্রী এই আসনে প্রার্থী হলে জয়ের ব্যাপারে আমরা শতভাগ আশাবাদী।’ ২২ মার্চ সিলেটে আওয়ামী লীগের এক সমাবেশে দলটির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সাম্পাদক মিজবাহ উদ্দিন সিরাজ সিলেট-১ আসনে নির্বাচন করার ঘোষণা দেন। ওই সমাবেশে অর্থমন্ত্রী ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের উপস্থিত ছিলেন। অর্থমন্ত্রী এখন সেই আসনেই ফের প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ যুগান্তরকে বলেন,‘ অর্থমন্ত্রী আর প্রার্থী হবেন না ঘোষণা দেয়ার পরই তো আমি ওই আসনে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছি। এখন উনি কেন আবার প্রার্থী হওয়ার কথা বলছেন বুঝতে পারছি না। উনি যাই বলুক, ওই আসনে আমি নির্বাচন করব।’
উল্লেখ্য, সিলেট-১ আসন মর্যাদাপূর্ণ আসন। ভোটের রাজনীতিতে ‘মিথ’ আছে- ‘সিলেট-১ আসন যার, ক্ষমতা তার’। স্বাধীনতার পর থেকে এই আসনে যে দলের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছে তারাই সরকার গঠন করেছে। এ কারণে আগামী নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে বিশেষ নজর রয়েছে রাজনৈতিক দলের। ১৯৭৩ সালে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেওয়ান ফরিদ গাজী এ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। ২য় সংসদ নির্বাচনে খন্দকার আবদুল মালিক, ৩য় ও ৪র্থ সংসদ নির্বাচনে হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী, ৫ম ও ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খন্দকার আবদুল মালিক, ৭ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী এবং ৮ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এম সাইফুর রহমান এমপি নির্বাচিত হন। সর্বশেষ নবম ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি নির্বাচিত হন বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর মধ্যে খন্দকার আবদুল মালিক ছাড়া সবাই এই আসন থেকে মন্ত্রী হয়েছিলেন। নির্বাচিত এসব সংসদ সদস্যের দলই সে সময় সরকার গঠন করে।

0 comments:

Post a Comment