Last update
Loading...

শ্রীলংকার কাছে আক্রমণাত্মক ক্রিকেট চান সাঙ্গাকারা


দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে কোণঠাসা শ্রীলংকা। এবার সামনে ভারত। কুমার সাঙ্গাকারা চান, বৃহস্পতিবার ওভালে আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলুক তার দেশ। সাবেক অধিনায়ক বলেছেন, ‘আমি চাই শ্রীলংকা আক্রমণাত্মক মেজাজটা দেখাক, প্রতিভার পরিচয় দিক আর ইতিবাচক ক্রিকেট খেলুক। ওরা যদি সেটা করতে পারে, তাহলে আশা আছে। তবে একটা কথা মনে করিয়ে দিতে চাই, ভারতের বিরুদ্ধে খেলাটা কিন্তু মোটেই সহজ নয়। পাকিস্তানকে হারিয়ে ভারত এখন আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে।’ শ্রীলংকার অস্বস্তির কারণ অনেক। এমনিতেই চোটের কবলে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। তিনি এখনও অনিশ্চিত। গোদের ওপর বিষফোঁড়া দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দলকে যিনি নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সেই উপুল থারাঙ্গা দু’ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ। নির্ধারিত সময়ে শ্রীলংকা বোলিং শেষ করতে না পারায়, শাস্তির কবলে পড়েছেন। এ বিষয়ে সাঙ্গাকারা বলেছেন, ‘এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেও যদি ম্যাথিউসকে পাওয়া না যায়, সেটা বড় ধাক্কা হবে দলের জন্য। ও যদি সুস্থও হয়, তাও মন্থর বোলিংয়ের ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। যার জেরে ইতিমধ্যেই থারাঙ্গাকে আমরা পাচ্ছি না। এটাও একটা সমস্যা। দলের সিনিয়র বোলারদের দায়িত্ব এই দিকটায় নজর দেয়া। ক্যাপ্টেন নিষিদ্ধ তো কী হয়েছে? ওদের দায়িত্ব নিজেদের ভুল শুধরে, দলের বাকিদের চাঙ্গা করে তোলা। উইকেটকিপার আর ফিল্ডারদেরও নিজেদের দায়িত্ব ঠিকঠাক পালন করতে হবে। পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে নিজেদের মেলে ধরতে হবে।’ এত সমস্যার পরও সাঙ্গাকারা মনে করেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে হার থেকে অনেক কিছুই শিখেছে শ্রীলংকা। বলেছেন, ‘শ্রীলংকাকে নতুন করে ভাবতে হবে। এক হতে হবে। শক্তি বাড়াতে হবে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ম্যাচটার থেকে ইতিবাচক শিক্ষাই ওরা নিয়েছে বলে মনে হয়। ফিল্ডিংয়ে জোর দেয়া আর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে বোলিং করা- এই দুটো দিকে বাড়তি নজর দিতে হবে। প্রাথমিক বিষয়গুলো ঠিক রাখাটা দরকার। সেইসঙ্গে ব্যক্তিগত প্রতিভার যদি প্রতিফলন ঘটে, তা হলে ভারতকে হারানো সম্ভব।’ তবে ভারতীয় বোলিং যে আগের থেকে অনেক বদলে গেছে সে কথা মনে করিয়ে দিতে ভোলেননি তিনি। সাঙ্গাকারার কথায়, ‘ভারতীয় বোলিং সত্যিই বদলেছে। আগে ভারত স্পিনারদের ওপর নির্ভর করত। এখন বৈচিত্র্য এসেছে বোলিংয়ে। এখন পেসাররাও দারুণ বল করছে।’ ওয়েবসাইট।

0 comments:

Post a Comment