Last update
Loading...

২ দিনব্যাপি বর্ধিতসভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা করবে ছাত্রলীগ

১০৯টি জেলা ইউনিটের সভাপতি-সম্পাদকদের নিয়ে বর্ধিত সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা করবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। আগামী ১১ ও ১২ জুন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অডিটোরিয়ামে এ কর্মসূচি পালন করবে সংগঠনটি। শনিবার এ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর কেন্টিনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ছাত্রলীগ। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের উপস্থাপনায় এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। লিখিত বক্তব্যে ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, আমরা গত বছর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সারাদেশে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যস্ততা সত্ত্বেও নিয়মিত বর্ধিত সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা করেছি। এবারও ১১ ও ১২ জুন আমাদের নিয়মিত এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি করবো। দুই দিনব্যাপি এই বর্ধিত সভায় কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত গতিশীল করার লক্ষে নেতা-কর্মীদের প্রতি দিক নির্দেশনামূলক পরামর্শ থাকবে। থাকবে একজন ছাত্রনেতার চারিত্রিক গঠন, ব্যক্তিত্ববোধ সৃষ্টিসহ নানা দিক নির্দেশনা। তিনি বলেন, জাতির পিতার আদর্শের এই সংগঠনের প্রতিটি নেতা-কর্মী হয়ে উঠবে একজন সুনাগরিক। বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলা চেয়েছেন, ছাত্রলীগই সেটা বিনির্মাণ করতে পারবে। ছাত্রলীগের প্রতি যেমনি জাতির পিতার আস্থা ছিল, তেমনি ছাত্রলীগও জাতির পিতার প্রধান সিপাহসালারের ভূমিকায় ছিল।
একইভাবে এখনও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে আগামী সংসদ নির্বাচনে বিজয় সুনিশ্চিত করতে এই সংগঠনের প্রতিটি নেতা-কর্মী প্রস্তুত। সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, আমরা প্রায় এককোটি পরিবারের একটি বৃহৎ পরিবার। ১০৯টি জেলা ইউনিট, ৫০টি আন্তর্জাতিক শাখা ইউনিট, অর্ধ সহস্র উপজেলা এবং প্রায় ৪৫৫০টি ইউনিয়ন ইউনিট আছে। ২০১৫ সালের জুলাই মাসে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই আমরা প্রায় সবগুলো আংশিক কমিটিকে পূর্ণাঙ্গ করেছি। ৩৭টি জেলা ইউনিটের সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি দিয়েছি। বেশ কয়েকটি ইউনিটের কমিটি প্রক্রিয়াধীন। তিনি বলেন, আমরা ছাত্রলীগকে তৃণমূল পর্যায়ে গতিশীল করতে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা ও রংপুর বিভাগে বিভাগীয় প্রতিনিধি সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা করেছি। যেগুলোতে একেবারেই ওয়ার্ড-ইউনিয়ন থেকে শুরু করে সর্বস্তরের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। আমরা তাদের সমস্যার কথা শুনেছি, সমাধানের নানা পদক্ষেপ নিয়েছি। কমিটি গঠন, কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা এবং যেখানে কমিটি নেই সেখানে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে বাকি বিভাগগুলোতেও এই প্রতিনিধি সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা করা হবে বলে জানিয়েছেন ছাত্রলীগের সভাপতি। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, অহিদুর রহমান জয়, মেহেদী হাসান রনি, আবদুল বাছেদ গলিব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদার মো. নিজামুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জসিম উদ্দিন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ইমরান খান, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম শামীম, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক রাকিব হোসেন, দফতর সম্পাদক দেলোয়ার শাহজাদা, উপ দফতর সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, উপ স্কুল ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মুহাম্মদ আরাফাত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

0 comments:

Post a Comment