Last update
Loading...

লন্ডনগামী বিমানে বোমা! জরুরি অবতরণ

বিমানের মধ্যে সন্দেহজনক কথাবার্তা। নাশকতার সম্ভাবনা আঁচ করে লন্ডনগামী বিমান ঘুরিয়ে জার্মানির কোলোনে নিয়ে যাওয়া হলো। সন্দেহভাজন ৩ যাত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ১৫১ জন যাত্রী নিয়ে শনিবার স্লোভেনিয়ার রাজধানী লুবলিয়ানা থেকে লন্ডনের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল ইজিজেটের এ–৩১৯ বিমানটি। উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পর তিন যাত্রীকে নাশকতা চালানো নিয়ে আলোচনা করতে শোনেন বাকিরা। বিমানসেবিকাকে সেকথা জানালে পাইলটকে খবর দেন তিনি। তড়িঘড়ি বিমান ঘুরিয়ে নেন তিনি। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছ’‌টা নাগাদ জার্মানির কোলোন বিমানবন্দরে অবতরণ করলে, বিমানটি ঘিরে ধরেন পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মীরা। জরুরি অবস্থায় ব্যবহৃত স্লাইড দিয়ে ১৫১ যাত্রীকে নিরাপদে নামিয়ে আনা হয়। বিমান ও ব্যাগপত্রে তল্লাশি চালিয়ে একে একে যাত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তাঁদের বয়ান শুনে সন্দেহভাজন ওই তিনজনকে আটক করে পুলিশ। তাদের মধ্যে একজনের কাছ থেকে একটি ব্যাগ উদ্ধার হয়। রানওয়ের কাছে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সেটিকে উড়িয়ে দেয়া হয়েছে। তবে ব্যাগের মধ্যে কী ছিল তা এখন পর্যন্ত প্রকাশ করা হয়নি। সন্দেহভাজনদের নাম–পরিচয়ও প্রকাশ করেনি পুলিশ। এই ঘটনায় বিমানবন্দরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। নিরাপত্তার খাতিরে প্রায় তিন ঘণ্টা বিমান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছিল। কোলনগামী ১০টি বিমান অন্য বিমানবন্দরে পাঠিয়ে দেয়া হয়। আরো একডজন বিমানের সময়সূচি বদল করা হয়। ইজিজেটের এ–৩১৯ বিমানটি ভাল করে পরীক্ষা করে দেখে সেখানকার পুলিশ ও নিরাপত্তাবাহিনী। শনিবার আর লন্ডন যাওয়া হয়নি বিমান যাত্রীদের। তাদের জন্য হোটেলের ব্যবস্থা করে কোলোন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। রোববার সকালে অন্য একটি বিমানে চড়ে লন্ডনের উদ্দেশে রওনা দেন তারা। সন্দেহভাজন ওই তিনজন কোলোন পুলিশের জিম্মায় রয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ইউরোপীয় দেশগুলিতে একের পর এক নাশকতার ঘটনায় জার্মানিতে উচ্চ সতর্কতা জারি হয়েছে। শুক্রবার থেকে সেখানে তিন দিনব্যাপী ‘‌রক অ্যাম রিং ফেস্টিভ্যাল’‌ শুরু হয়। কিন্তু সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় স্টেডিয়াম খালি করে দেয় স্থানীয় পুলিশ। তল্লাশি চালিয়ে অবশ্য সন্দেহজনক কিছু মেলেনি।

0 comments:

Post a Comment