Last update
Loading...

জাতিসংঘের নির্বাচনে শোচনীয় হার পাকিস্তানের

জাতিসংঘের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শাখা ইকোসকের নির্বাচনে বিপুল ভোটে পুনঃনির্বাচিত হল ভারত। এ নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয় হয়েছে পাকিস্তানের। গত তিন বছর ধরে এ পরিষদের সদস্য ছিল ভারত। এ বছরের শেষেই সেই মেয়াদ ফুরানোর কথা ছিল। কিন্তু ফের নির্বাচিত হওয়ায় ভারত ২০১৮ সালের প্রথম দিন থেকে আরও তিন বছরের জন্য জাতিসংঘের ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কাউন্সিলের (ইকোসক) সদস্য থাকছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকা জানায়, এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রতিনিধি হিসেবে ইকোসকের সদস্য নির্বাচিত হয়েছে ভারত। জাতিসংঘের নিয়ম অনুযায়ী, ইকোসকের সদস্য পদে নির্বাচিত হতে অন্তত দুই-তৃতীয়াংশ ভোট পাওয়ার দরকার হয়। ভারত তার চেয়ে অনেক বেশি ভোট পেয়েছে। ১৮৩টি ভোট পেয়ে ভারত পুনঃনির্বাচিত হয়েছে বলে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। এশিয়া-প্যাসিফিক বিভাগে ভারতের চেয়ে বেশি ভোট পেয়েছে একমাত্র জাপান। জাপান এবং ভারত দুই দেশই এতদিন ইকোসকের সদস্য ছিল। তারা পুনঃনির্বাচিত হল।
এ অঞ্চল থেকে নতুন সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হল ফিলিপাইন। কিন্তু বর্তমান সদস্য পাকিস্তান আর জিততে পারেনি। ভারত এবং জাপানের মতো পাকিস্তানও পুনঃনির্বাচিত হওয়ার জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছিল। কিন্তু তারা মাত্র ১টি ভোট পেয়েছে। জাতিসংঘের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছয়টি শাখার মধ্যে একটি হল ইকোসক। অর্থনৈতিক, সামাজিক এবং পরিবেশসংক্রান্ত বিষয়ে জাতিসংঘ কোন নীতি নিয়ে চলবে, তার রূপায়ণের জন্য বিভিন্ন দেশের মধ্যে কিভাবে সমন্বয় সাধন করা হবে, ইকোসকই তা নির্ধারণ করে। আন্তর্জাতিক উন্নয়নের জন্য যেসব সিদ্ধান্ত জাতিসংঘে গৃহীত হয়, তার রূপায়ণও এ ইকোসকের মাধ্যমেই হয়। ইকোসকে মোট ৫৪টি আসন। প্রতি বছর এক-তৃতীয়াংশ সদস্যের অর্থাৎ ১৮ সদস্যের মেয়াদ শেষ হয়। স্বাভাবিকভাবেই প্রতিবছর ১৮টি দেশ নতুন করে নির্বাচিত হয়। এবার যে ১৮টি দেশ নির্বাচিত হয়েছে তারা হল- বেলারুস, ইকুয়েডর, এল সালভাদর, ফ্রান্স, জার্মানি, ঘানা, ভারত, আয়ারল্যান্ড, জাপান, মালাউই, মেক্সিকো, মরক্কো, ফিলিপাইন, স্পেন, সুদান, টোগো, তুরস্ক এবং উরুগুয়ে। এদের মধ্যে ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, জাপান, আয়ারল্যান্ড এবং ঘানা পুনঃনির্বাচিত হয়েছে। বাকিরা নতুন সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হল।

0 comments:

Post a Comment