Last update
Loading...

ক্ষমতা কমল সৌদি যুবরাজের অপরাধ তদন্ত বিভাগ থেকে অব্যাহতি

ক্ষমতা কমানো হয়েছে সৌদি যুবরাজ ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়িফের। দেশটির বিচারব্যবস্থা ঢেলে সাজাতে বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ একটি রাজকীয় ডিক্রি জারি করেছেন। নতুন এ ডিক্রি অনুযায়ী অপরাধমূলক তদন্ত বিভাগ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশনের দায়িত্ব থেকে ক্রাউন প্রিন্সকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে দেশটির এই বিভাগের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন ক্রাউন প্রিন্স। খালিজ টাইমস এ খবর দিয়েছে। শনিবার দেশটির ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশনের নাম পরিবর্তন করে অফিস অব পাবলিক প্রসিকিউশন রাখা হয়েছে। নতুন নামের প্রতিষ্ঠানটিতে একজন সরকারি কৌঁসুলিও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। নবনির্বাচিত কৌঁসুলিকে সরাসরি বাদশার কাছে প্রতিবেদন পেশ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এতদিন বাদশা সালমানের ভ্রাতুষ্পুত্র ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নাইফ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশন তদারক করতেন। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মনোনয়নও করতেন তিনি। ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নাইফ বর্তমানে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন। এতদিন আইন মন্ত্রণালয়ের পরিবর্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সংযুক্ত ছিল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশন। পুলিশ ও অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনী প্রতিষ্ঠানটির তত্ত্বাবধান করে থাকে। এ পর্ষদের দায়িত্বের অন্তর্ভুক্ত ছিল- অপরাধ তদন্ত, মামলা দায়ের, আদালতের রায়ের বিষয়ে আপিল করা এবং বিভিন্ন দণ্ডাদেশের তদারক করা। তবে অফিস অব পাবলিক প্রসিকিউশনের দায়িত্ব কার কোন মন্ত্রণালয়ের হাতে থাকবে, সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। আসবাইলের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক গড়ছে রিয়াদ।
ইসরাইলের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক গড়ছে রিয়াদ : দ্য টাইমস এক রিপোর্টে জানিয়েছে, ইসরাইলের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড জবরদখলের মাধ্যমে এখন থেকে ৬৯ বছর আগে ইসরাইল প্রতিষ্ঠিত হলেও এই প্রথম দেশটির সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে গোপন আলোচনা চলছে। সৌদি আরব ও আমেরিকার কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে শনিবার দ্য টাইমস পত্রিকা জানায়, সৌদি আরবে ইসরাইলি কোম্পানিগুলোর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতির মাধ্যমে কিংবা সৌদি আরবের আকাশসীমায় ইসরাইলের বিমান চলাচলের অনুমতি দেয়ার মাধ্যমে এ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হতে পারে। ধীরে ধীরে এ সম্পর্ক বাড়বে বলে ওই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ইরানের প্রধান দুই শত্রু দেশের মধ্যে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা হলে তা মধ্যপ্রাচ্যের বহু ঘটনার গতিপ্রকৃতি পাল্টে দেবে এবং এ অঞ্চলকে অনেক বেশি অস্থিতিশীল করে তুলবে। এ পর্যন্ত সৌদি কর্মকর্তারা গোপনে ইসরাইলের সঙ্গে কয়েকবার আলোচনা করেছেন বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ সব আলোচনার প্রধান লক্ষ্য হল অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে ধীরে ধীরে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করা। ইরানি জেলেকে হত্যা করল সৌদি উপকূলরক্ষীরা : ইরানের একজন জেলেকে হত্যা করেছে সৌদি আরবের উপকূলরক্ষীরা। পারস্য উপসাগরের দক্ষিণাঞ্চলে এ ঘটনা ঘটেছে বলে ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা মাজিদ আগা বাবায়ি জানিয়েছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সীমান্তবিষয়ক এ পরিচালক জানান, বিশাল ঢেউয়ের কারণে ইরানি জেলেদের দুটি মাছধরা নৌকা নিজস্ব পানিসীমা থেকে ছিটকে পড়লে সৌদি উপকূলরক্ষীরা নৌকা দুটির ওপর গুলি চালায়। এতে একজন জেলে কোমরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

0 comments:

Post a Comment