Last update
Loading...

টিসিবির পণ্য কিনতে দীর্ঘ লাইন

রমজান উপলক্ষে সরকারি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান টিসিবির ভর্তুকি মূল্যে পণ্য বিক্রি কর্মসূচিতে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। সাধারণ বাজার থেকে কম দামে পণ্য পেতে রাজধানীর ক্রেতারা বেশ ভিড় করছেন। পণ্য কিনতে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়াচ্ছেন অনেক সক্ষম ক্রেতাও। উদ্দেশ্য খাদ্যপণ্য কিনতে অধিক ব্যয় কমানো। তাই নিন্মবিত্ত, দরিদ্র, দিনমজুর কিংবা ভাসমান ক্রেতারা সবাই বেপরোয়া হয়ে উঠছেন কম দামে সরবরাহ করা টিসিবির পণ্য কিনতে। সরেজমিন রাজধানীর প্রেস ক্লাব, সচিবালয় গেট, মতিঝিল বক চত্বর, মতিঝিল শাপলা চত্বর, দৈনিক বাংলা মোড়, পলাশী বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। বুধবার এসব স্থানে স্বল্পমূল্যের পণ্য নিতে এসেছেন স্থানীয়দের পাশাপাশি দূর-দূরান্তের নিন্মআয়ের মানুষ। তবে সহজেই এই ভর্তুকি মূল্যের পণ্য পাওয়া যায় না। এ জন্য অনেক ঘাম ঝরিয়ে দাঁড়াতে হয় দীর্ঘ লাইনে। একসময় নিজের সিরিয়াল এলেও দেখা গেছে, ডাল আছে, তেল নেই। আবার লম্বা লাইনের সারি শেষ হওয়ার আগেই বিক্রি শেষ হয়ে গেছে টিসিবির দৈনিক সরবরাহকৃত পণ্য। একই খবর পাওয়া গেছে শাহজাহানপুর, বাসাবো, রামপুরা, আগারগাঁও, শেওড়াপাড়া বাজার, মিরপুর-১-এর মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট, মোহাম্মদপুর টাউন হল ও ঝিগাতলা কাঁচাবাজারসহ রাজধানীতে টিসিবির কার্যক্রম পরিচালনা করা ৩৩টি স্থানেও। জানা গেছে, রমজান উপলক্ষে সারা দেশে ১৮৫টি ট্রাকের মাধ্যমে ভর্তুকি মূল্যে পণ্য বিক্রি করছে সরকারি সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। এর মধ্যে ঢাকায় ৩৩টি, চট্টগ্রামে ১০টি, অন্যান্য বিভাগীয় শহরে ৫টি করে এবং জেলা শহরে ২টি করে ট্রাকে পণ্য বিক্রি করছে টিসিবি। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে টিসিবির খোলা ট্রাক থেকে পণ্য নিতে আসা আশা আক্তার যুগান্তরকে বলেন, এখানে সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য পাওয়া যায়। এজন্য সকাল থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। শেষ পর্যন্ত ভাগ্য সহায় হয়েছে। সিরিয়ালে আমার পালা এলে বাজারমূল্যের চেয়ে অনেক কম দামে ২ কেজি ছোলা, ২ কেজি চিনি কিনতে পেরেছি।
তবে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও মসুর ডাল কিনতে পারিনি। আমার পালা আসার আগেই তা শেষ হয়ে গেছে। মতিঝিল বক চত্বরে টিসিবির খোলা ট্রাক থেকে পণ্য কিনতে আসা কামাল মিয়া বলেন, এখানে কম মূল্যে পণ্য কিনতে এসেছি। তবে অনেকক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়েও পণ্য কিনতে পারিনি। শুনেছি কালকেও তারা এখানেই বসবে। তাই কাল আগেভাগেই এসে লাইনে দাঁড়াব। কারণ এখান থেকে পণ্য নিলে বাজার থেকে অনেক কম দামে পাওয়া যাবে। তবে মতিঝিল শাপলা চত্বরে টিসিবির পণ্য কিনতে আসা স্থানীয় বাসিন্দা মো. সজিব যুগান্তরকে বলেন, টিসিবির পণ্যে মনে হচ্ছে আগের তুলনায় মান ভালো হয়েছে। বিশেষ করে তেল ও ডাল খুবই মানসম্মত। আবার দামও কম। তাই সুযোগ পেয়ে স্বল্পমূল্যের পণ্য কিনলাম এখানে এসে। আর আমার মতো অনেকেই টিসিবির পণ্য কিনে নিচ্ছে। মতিঝিল বক চত্বর এলাকায় টিসিবি ডিলার নূর মোহাম্মদ যুগান্তরকে বলেন, প্রতিদিন টিসিবি থেকে ৩০০ লিটার সয়াবিন তেল, ২৫০ থেকে ৩০০ কেজি মসুরের ডাল, ৩০০ থেকে ৪০০ কেজি ছোলা, ৩০০ থেকে ৪০০ কেজি চিনি ও ৩০ থেকে ৪০ কেজি খেজুর সরবরাহ করা হয়। তিনি দাবি করেন, এ পরিমাণ পণ্য ভোক্তার চাহিদার তুলনায় খুবই কম। দুই ঘণ্টা থাকলেই বিক্রি শেষ হয়ে যায়। এ কারণে অনেককে খালি হাতে ফিরতে হয়। এদিকে টিসিবি চিনি (দেশি) প্রতি কেজি ৫৫ টাকা, মসুর ডাল ৮০ টাকা, সয়াবিন তেল বোতল প্রতি লিটার ৮৫ টাকা, ছোলা প্রতি কেজি ৭০ টাকা ও খেজুর প্রতি কেজি ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর টিসিবির ভ্রাম্যমাণ দোকান থেকে একজন ক্রেতা ৫ কেজি ছোলা, ৫ লিটার তেল, ৩ কেজি ডাল, ৪ কেজি চিনি ও ১ কেজি খেজুর কিনতে পারবেন।

0 comments:

Post a Comment