Last update
Loading...

তাসকিন ফিরলেন

একাদশে তাদের দেখা যাবে আগে থেকে অনেকেই ভাবতে পারেননি। মোসাদ্দেক হোসেন এক ম্যাচ সুযোগ পেয়েই পরের ম্যাচে বাদ পড়েছিলেন। তাসকিন আহমেদ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রুফির প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগই পাননি। কাল গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের শেষ ম্যাচে দু’জনই একাদশে সুযোগ পান। বোলিংয়ে চমক দেখালেন মোসাদ্দেক এবং তাসকিন। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রুফিতে বোলিং দুরূহ হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশকে সেই বোলিংয়ে স্বস্তি দিলেন এ দু’জন। কাল কার্ডিফে মোসাদ্দেক তিনটি এবং তাসকিন দুটি উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে ২৬৫ রানে আটকে রাখতে বড় ভূমিকা রাখেন। বৃষ্টিভেজা মাঠেও সবাইকে অবাক করে দিয়ে টস জিতে কেন উইলিয়ামসন ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। বাংলাদেশের পরিকল্পনা ছিল টস জিতলে ফিল্ডিং নেয়ার। টস হেরে সেকথা জানালেন মাশরাফি। মোহাম্মদ আশরাফুলও একটি টিভি শোতে বলেন, আগে ফিল্ডিং করাটাই শ্রেয়। নিউজিল্যান্ডও শুরুতে বুঝিয়ে দেয়, তারা ভুল করেনি। প্রায় সাত করে রান তুলছিলেন দুই কিউই ওপেনার।
নিজের দ্বিতীয় ওভারে বোলিং করতে এসে বাংলাদেশকে প্রথম উইকেট উপহার দেন তাসকিন। তার গতিতে পরাস্ত হন লুক রনকি। ১৮ বলে ১৬ রান করে রনকি ক্যাচ দেন মোস্তাফিজকে। এরপর রস টেলর যখন ৬৩ রান করে আরও বেশি বিধ্বংসী হয়ে উঠছিলেন, তখন তাসকিন তাকে মোস্তাফিজের ক্যাচ বানান। আট ওভারে ৪৩ রান দিয়ে দুটি উইকেট পান তাসকিন। ডান হাতি অফ-স্পিনিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক যখন বল হাতে নেন তখন তিনশ’ ছাড়ানো স্কোর করার স্বপ্ন দেখছে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের স্কোর তখন ৪১ ওভারে ২১১/৪। ৪২তম ওভারে মোসাদ্দেক দেন পাঁচ রান। পরের ওভারে প্রথম বলেই বিদায় করেন নিল ব্রুমকে। এগিয়ে এসে চড়াও হতে গিয়ে আকাশে তুলে দেন ব্রুম। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে সহজেই ক্যাচ নেন তামিম ইকবাল। এক বল বিরতিতে আবার মোসাদ্দেকের আঘাত। এবার এলবিডব্ল– হয়ে গোল্ডেন ডাক হন কোরি অ্যান্ডারসন। আউট হয়ে ফিরে যাচ্ছিলেন বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যান। তাকে থামিয়ে রিভিউ নেয়ার পরামর্শ দেন জিমি নিশাম। রিভিউয়ে অবশ্য পাল্টায়নি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত। মোসাদ্দেক নিজের তৃতীয় এবং দলীয় ৪৬তম ওভারে পাঁচ রান দিয়ে তুলে নেন জিমি নিশামকেও। এরপর তাকে আর বোলিংয়ে আনেননি মাশরাফি। পরের চার ওভার পেসাররাই শেষ করেছেন। এই টুর্নামেন্টে কাল প্রথম চার পেসার নিয়ে একাদশ সাজায় টিম ম্যানেজমেন্ট। ইমরুল কায়েস ও মেহেদী হাসান মিরাজের জায়গায় একাদশে স্থান পান মোসাদ্দেক হোসেন ও তাসকিন আহমেদ।

0 comments:

Post a Comment