Last update
Loading...

ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ

বৈশ্বিক শান্তি সূচকে গতবারের চেয়ে এক ধাপ পেছালেও ভারত, পাকিস্তান ও নেপালের চেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। দক্ষিণ এশিয়ায় এ অবস্থান তৃতীয়। সিডনিভিত্তিক থিংক ট্যাঙ্ক ইন্সটিটিউট ফর ইকনোমিকস অ্যান্ড পিস বা আইইপি প্রকাশিত গ্লোবাল পিস ইনডেক্স (জিপিআই) ২০১৭-এ এসব তথ্য উঠে এসেছে। সূচকে ২০০৮ সালের পর বিশ্বে সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে আইসল্যান্ড। এরপরই রয়েছে নিউজিল্যান্ড, পর্তুগাল, অস্ট্রিয়া ও ডেনমার্ক। তালিকার একেবারে নিচে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া ও আফগানিস্তান। আর দক্ষিণ এশিয়ার দেশের মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে ভুটান (১৩তম)। জিপিআই অনুযায়ী, ১৬৩টি দেশের মধ্যে ২ দশমিক ০৩৫ স্কোর নিয়ে ৮৪তম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা ৮০তম, ভারত ১৩৭তম, পাকিস্তান ১৫২তম ও আফগানিস্তান ১৬২তম অবস্থানে রয়েছে।
গতবার বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৩-তে। তিন ভাগে বিভক্ত ২৩টি নির্দেশক (ইনডিকেটর) বিবেচনায় নিয়ে শান্তি পরিমাপ করেছে আইইপি। এ নির্দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে- সামাজিক নিশ্চয়তা, নিরাপত্তা, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সংঘাতের মাত্রা ও সামরিকীকরণ। প্রতিবেদন প্রকাশকারী সংস্থাটি আরও জানায়, ২০১১ সালে সিরিয়ায় যুদ্ধ শুরু হয়। এরপর এবারই প্রথম শান্তিতে কিছুটা অগ্রগতি হয়েছে বিশ্বের। এ বছর ভালোর দিকে উঠে এসেছে ৯৩টি দেশ। ৬৮টি দেশের অবস্থা আগের চেয়ে খারাপ হয়েছে। সেদিক থেকে ০ দশমিক ২৮ শতাংশ শান্তি বেড়েছে। এছাড়া ২০০৮ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে বিশ্বজুড়ে অশান্তি বাড়তে থাকে। সে বছর থেকে ৮০টি দেশের অগ্রগতি হলেও ৮৩টি দেশে অশান্তি বেড়েছে। সে হিসাবে বিশ্বজুড়ে আট বছরে ২ দশমিক ১৪ শতাংশ শান্তি কমেছে। এ সময়ের মধ্যে সন্ত্রাসবাদ সূচকেও বিশ্বের অবস্থা খারাপের দিকে গেছে। ২০০৮ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে ৬০ শতাংশ সন্ত্রাসী তৎপরতা বেড়েছে। ডেনমার্ক, সুইডেন, ফ্রান্স ও তুরস্কসহ ২৩ দেশে এ সময় অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি মানুষ সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণ হারান। আর ২০১৬ সালে সন্ত্রাসের কারণে বিশ্বে ১৪ লাখ ৩০ হাজার কোটি ডলারের অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়।

0 comments:

Post a Comment