Last update
Loading...

ঘোষিত সময়ে ঈদ বোনাস পাননি পোশাকশ্রমিকেরা

২০ রমজানের মধ্যে পোশাকশ্রমিকদের ঈদ বোনাস বা উৎসব ভাতা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। গত শুক্রবার সেই সময়সীমা পার হয়েছে। তবে হাতে গোনা কিছু কারখানা ছাড়া কেউই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শ্রমিকদের ভাতা দেয়নি। বিজিএমইএ, শ্রমিক সংগঠন ও শিল্প পুলিশ জানায়, বড় কিছু কারখানা পোশাকশ্রমিকদের উৎসব ভাতা দিয়েছে। তবে সংখ্যাটি এত নগণ্য যে এখন পর্যন্ত তা বলার মতো নয়। তা ছাড়া, কোনো কারখানা চলতি মাসের বেতন দিয়েছে, তেমন তথ্যও পাওয়া যায়নি। গত ২৯ মে পোশাকশিল্পের ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক কোর কমিটির ৩৩তম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে বিজিএমইএর সহসভাপতি মোহাম্মদ নাছির প্রতিশ্রুতি দেন, ২০ রমজানের মধ্যে শ্রমিকদের উৎসব ভাতা দেবেন কারখানার মালিকেরা। তবে গতকাল ২১ রমজান পার হলেও অধিকাংশ পোশাকশ্রমিকই ভাতা পাননি। জানতে চাইলে মোহাম্মদ নাছির গতকাল বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, শুক্র ও শনিবার ব্যাংক বন্ধ থাকায় অনেক কারখানার মালিক শ্রমিকদের ভাতা দেওয়া শুরু করতে পারেননি। তবে আগামী দুই দিনের মধ্যে (আজ রোববার ও কাল সোমবার) অধিকাংশ কারখানা ভাতা পরিশোধ করে দেবে। এ ছাড়া ২২ জুনের মধ্যে চলতি মাসের ১০-১৫ দিনের মজুরি শ্রমিকেরা পেয়ে যাবেন বলে দাবি করেন তিনি। বেতন-ভাতা নিয়ে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে না বলে দাবি করেন মোহাম্মদ নাছির। তিনি বলেন, ‘বেতন-ভাতা সবাই পরিশোধ করছে কি না, সেটি আমরা তদারকি করছি। সমস্যা হতে পারে এমন ১০-১২টি কারখানাকে আমরা নজরদারিতে রেখেছি। আশা করছি, ঝামেলা মিটে যাবে।’ জানতে চাইলে জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম গত রাতে প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঢাকা মহানগরের কোনো কারখানা এখনো বোনাস দেয়নি। আশুলিয়া, সাভার, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামের অল্প কিছু বড় পোশাক কারখানা বোনাস দিয়েছে। তবে সংখ্যাটি এত কম যে এখনো বলার পর্যায়ে নেই। মালিকেরা কবে থেকে বোনাস দেওয়া শুরু করবেন, সেটি আমাদের কাছে এখনো পরিষ্কার না।’ সিরাজুল ইসলাম আরও বলেন, ‘এবারের ঈদ হবে মাসের শেষ সপ্তাহে। ঈদের আগে চলতি মাসের অর্ধেকের বেশি বেতন দেওয়ার বিষয়ে সুস্পষ্ট ঘোষণা নেই। ফলে অনেক কারখানার মালিক ঈদের পর বেতন দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন। তাই আমাদের শঙ্কা, বেতন পরিশোধ নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ হতে পারে। এ ছাড়া বিজিএমইএ ও বিকেএমইএর সদস্য নয়, এমন কারখানায় প্রতিবছরই কিছু না কিছু সমস্যা হয়। এ বিষয়ে সরকারের উদ্যোগ নেওয়া দরকার।’

0 comments:

Post a Comment