Last update
Loading...

ব্রিটিশ রানীর বিষণ্ণ জন্মদিন

ম্যানচেস্টারের হামলা ও লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিষণ্নতার আবহে কেটেছে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্মদিন। জন্মদিনে দেয়া বার্তাতেও উঠে এসেছে সেই বিষণ্নতার বিবরণ। শনিবার সরকারিভাবে পালিত জন্মদিনের বার্তায় তিনি বলেন, এ পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠা কঠিন হবে। তবে ব্রিটেনের ঐক্যের শক্তির ওপর আস্থা রয়েছে। বিবিসি জানায়, ঐতিহ্যগতভাবে বছরে দু’বার জন্মদিন পালন করেন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ। সরকারিভাবে জুনের কোনো এক শনিবার তার জন্মদিন উদযাপন করা হয়। তার প্রকৃত জন্মদিন ২১ এপ্রিল। প্রকৃত জন্মদিনে তাকে ‘গান স্যালুট’ দেয়া হয়। আর সরকারি জন্মদিনে থাকে বাকিংহাম প্যালেসে প্যারেড। তবে ম্যানচেস্টার কনসার্টে হামলা এবং গ্রেনফেল টাওয়ারের আগুনে হতাহতদের কারণে এবার আর সেই আমেজ নেই। শনিবার রানীর জন্মদিনের বার্তায়ও তাই শোকের ছায়া। বার্তায় বলা হয়, ‘আজ উদযাপনের এক ঐতিহ্যবাহী দিন। যদিও এ বছর, জাতীয়ভাবে যে বিষণœতার আবহ তৈরি হয়েছে তা থেকে বের হয়ে আসা কঠিন।
সম্প্রতি ম্যানচেস্টার ও লন্ডন সফরের সময়, আমি চরম সংকটে থাকা লোকজনের সহায়তায় পুরো দেশের মানুষকে এগিয়ে আসতে দেখে বিস্মিত হয়েছি। দুঃখের মাঝেও আমরা ঐক্যবদ্ধ। আহত ও ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা দিতে আমরা একইরকম করে সংকল্পবদ্ধ।’ এর আগে শুক্রবার ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স উইলিয়ামকে সঙ্গে নিয়ে গ্রেনফেল টাওয়ারের দুর্গতদের দেখতে যান রানী এলিজাবেথ। এ সময় দুর্গতদের জন্য স্থাপিত এক ত্রাণ সহায়তা কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন তিনি। মঙ্গলবার মধ্যরাতে গ্রেনফেল টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ৩০ জন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিখোঁজ রয়েছেন আরও অন্তত ৭০ জন। তবে ভবনের অভ্যন্তরে কারও জীবিত থাকার আশা নেই বলে জানিয়েছে পুলিশ। বিভিন্ন ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম ওই ভবনে ৪০০ থেকে ৬০০ মানুষের বসবাসের কথা জানিয়েছে। তবে আগুন লাগার পর ঠিক কতজন বের হতে পেরেছেন সে বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি। পুলিশের পক্ষ থেকে স্বীকার করা হয়েছে, নিহতদের সবাইকে শনাক্ত করা সম্ভব হবে না। এ অবস্থায় শতাধিক মৃত্যুর আশঙ্কা করছেন লন্ডনবাসী।

0 comments:

Post a Comment