Last update
Loading...

ঈদ রেসিপি

খাসির শাহি ঝাল রেজালা
যা লাগেব : খাসির মাংস এক কেজি, পেঁয়াজ বেরেস্তা আধাকাপ, আদা-রসুন গুঁড়া এক টেবিল চামচ, হলুদ মরিচ গুঁড়া এক টেবিল চামচ, জায়ফল-জয়ত্রী বাটা আধা চা চামচ, শাহ্ জিরা বাটা আধা চা চামচ, পেস্তা দানা বাটা এক টেবিল চামচ, দারুচিনি এলাচ তিন-চার টুকরা, ধনিয়া গুঁড়া এক চা চামচ, তেজপাতা দুটি, টকদই এক কাপ, আলুবোখারা সাত-আটটি, কাঁচামরিচ ছয়-সাতটি, পেস্তাবাদাম বাটা এক টেবিল চামচ, তেল-ঘি আধাকাপ, লবণ স্বাদমতো।
যেভাবে করবেন : মাংস বড় বড় টুকরা করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। একটি পাত্রে মাংস, টকদই, লবণ ও বাটা-গুঁড়া মশলা ভালো করে মিশিয়ে এক ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখুন। হাঁড়িতে তেল ও ঘি গরম করে দারুচিনি এলাচ তেজপাতা হাল্কা ভেজে পেঁয়াজ বাদামি করে ম্যারিনেট করা মাংস দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে সামান্য পানি ও লবণ দিয়ে নেড়ে ২০-২৫ মিনিট রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে পেঁয়াজ বেরেস্তা, কাঁচামরিচ, আলুবোখারা দিয়ে মৃদু আঁচে দমে রাখুন। মাংসের ওপর তেল উঠে এলে নামিয়ে পরিবেশন করুন।
কড়াই মুরগি
যা লাগবে : মুরগি একটি, পেঁয়াজ কুচি আধাকাপ, পেঁয়াজ বাটা দুই টেবিল চামচ, আদা রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, হলুদ মরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, টকদই আধাকাপ, মিষ্টিদই এক টেবিল চামচ, লেবুর রস এক চা চামচ, পেস্তা বাদাম বাটা দুই টেবিল চামচ, ধনে জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ, গরম মশলা গুঁড়া আধা চা চামচ, তেজপাতা একটি, বাদাম বাটা এক টেবিল চামচ, টমোটোসস দুই টেবিল চামচ, তেল পরিমাণমতো, ঘি এক টেবিল চামচ, লবণ, স্বাদমতো।
যেভাবে করবেন : মাংস ছোট ছোট টুকরা করে ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। একটি পাত্রে মাংস, হলুদ, টকদই, লেবুর রস ও লবণ দিয়ে ৩০ মিনিট ম্যারিনেট করে রাখুন। হাঁড়িতে তেল গরম করে অর্ধেক পেঁয়াজ কৃচি বেরেস্তা করে রাখুন। বাকি পেঁয়াজ মাংসে দিন। মাংস মাঝারি আঁচে নাড়তে থাকুন বাদামি হয়ে এলে একে একে সব বাটা মশলা, দই, বাদাম বাটা ও সামান্য পানি দিয়ে মৃদু আঁচে ঢেকে রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে ঢাকনা খুলে বাকি সব গুঁড়া মশলা দিয়ে ক্রমাগত নেড়ে ভাজা ভাজা করে ঘি ছিটিয়ে নামিয়ে গমর গরম পরিবেশন করুন।
মাটন চাপ
যা লাগবে : মাটন এক কেজি, পেঁয়াজ বাটা আধাকাপ, আদা-রসুন বাটা দেড় চা চামচ, হলুদ-মরিচ গুঁড়া এক টেবিল চামচ, টকদই আধা কাপ, গরম মশলা গুঁড়া এক চা চামচ, জায়ফল-জয়ত্রী বাটা কোয়র্টার চা চামচ, পেঁপে বাটা এক টেবিল চামচ, শাহি জিরা এক চা চামচ, কাঁচামরিচ চার-পাঁচটি, পোস্তদানা বাটা এক টেবিল চামচ, বেসন ভাজা এক টেবিল চামচ, কেওড়া পানি এক চা চামচ, ঘি এক টেবিল চামচ, তেল আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো।
যেভাবে করবেন : মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। একটি পাত্রে মাংস, টকদই ও পেঁপে বাটা ভালো করে মিশিয়ে এক ঘণ্টা রেখে দিন। হাঁড়িতে তেল গরম করে শাহি জিরা ও তেজপাতা হাল্কা ভেজে হলুদ, মরিচ, আদা, রসুন দিয়ে নেড়ে মাংস দিয়ে ভালোভাবে কষাতে থাকুন। এতে জয়ফল-জয়ত্রী বাটা গরম মশলা গুঁড়া দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষিয়ে পরিমাণ মতো পানি ও লবণ দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে তেল ওপরে উঠে এলে কেওড়া পানি কাঁচামরিচ ঘি দিয়ে পাঁচ মিনিট দমে রেখে নামিয়ে পোলাও ও ভাত বা রুটি পরোটার সঙ্গে পরিবেশেন করুন।
গরুর মাংস ভুনা
যা লাগবে : গরুর মাংস এক কেজি, পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, আদা-রসুন বাটা দুই টেবিল চামচ, শুকনামরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, দারুচিনি এলাচ তিন-চার টুকরা, জায়ফল-জয়ত্রী গুঁড়া আধা চা চামচ, টালা জিরা গুঁড়া এক চা চামচ, কাঁচামরিচ পাঁচ-ছয়টি, লবঙ্গ তিন-চারটি, তেজপাতা দুটি, ভিনেগার এক টেবিল চামচ, টকদই, তেল এক কাপ, লবণ স্বাদমতো।
যেভাবে করবেন : মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। হাঁড়িতে মাংস তেল পেঁয়াজ ও সব উপকরণ ভালো করে মিশিয়ে ৩০ মিনিট ম্যারিনেট করে রাখুন। চুলায় হাঁড়ি বসিয়ে মৃদু আঁচে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে বসিয়ে রাখুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে এলে পর পর নাড়তে থাকুন। মশলা মাংসের সঙ্গে মিশে এলে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। ঝোল মাখা মাখা হয়ে এলে কাঁচামরিচ-গোলমরিচ গুঁড়া ছিটিয়ে দিন। মাংস ভাজা ভজা হয়ে এলে নামিয়ে ভাত, রুটি, তন্দুরি বা পরোটার সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন।
পিউরি চিকেন
যা লাগবে : মুরগি একটি, আদা-রসুন বাটা দুই টেবিল চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়া এক টেবিল চামচ, শুকনা মরিচ দুই-তিনটি, গরম মশলা গুঁড়া এক চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, ধনে গুঁড়া এক চা চামচ, টমেটো পিউরি এক কাপ, তেঁতুলের ক্বাথ এক টেবিল চামচ, ঘি আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো, চিনি সামান্য।
যেভাবে করবেন : মুরগি কেটে টুকরা করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। ফ্রাইপ্যানে ঘি গরম করে শুকনা মরিচ, জিরা গুঁড়া, আদা-রসুন দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে টমেটো পিউরি দিয়ে নেড়ে আবার শুকনা মরিচ, গোলমরিচ গুঁড়া দিয়ে ক্রমাগত নেড়ে ভালোভাবে কষিয়ে মাংসের টুকরা গরম মশলা গুঁড়া, লবণ দিয়ে পাঁচ-ছয় মিনিট মৃদু আঁচে ভেজে সামান্য চিনি দিয়ে রান্না করুন। এবার তেঁতুলের ক্বাথ দিন। মাংস সিদ্ধ হয়ে ঝোল মাখা মাখা হয়ে এলে সামান্য ঘি ছিটিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন পিউরি চিকেন।
রেসিপি দিয়েছেন : জিন্নাত রায়হান সুমি, আলোকচিত্রী : মনির আহমেদ
মাটন বিরিয়ানি
যা লাগবে : খাসির মাংস দেড় কেজি, টকদই এক কাপ, পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, আদা বাটা দেড় টেবিল চামচ, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ, ধনে গুঁড়া আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ, ভাজা জিরা গুঁড়া এক টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, পোস্ত বাটা এক টেবিল চামচ, চিনি এক চা চামচ, তেল+ঘি চার ভাগের এক কাপ + চার ভাগের এক কাপ,
যেভাবে করবেন : মাংসের সঙ্গে তেল-ঘি, পেঁয়াজ কুচি ছাড়া গুঁড়া মশলার অর্ধেক ও অন্যান্য বাটা ও গুঁড়া মশলা মেখে ম্যারিনেট করুন এক ঘণ্টা। এবার চুলায় কড়াই বসিয়ে তেল+ঘি দিন। পেঁয়াজ কুচি দিয়ে বেরেস্তা করে অর্ধেক তুলে রাখুন। বাকি বেরেস্তাসহ তেলের মিশ্রণে ম্যারিনেট করা মাংস দিয়ে ভুনা ভুনা করে রান্না করে নিন।
যা লাগবে : এলাচ ছয়টি, বাসমতী চাল এক কেজি, লবঙ্গ চারটি, দারুচিনি দুই টুকরা, পুদিনাপাতা দুই টেবিল চামচ, ধনেপাতা দুই টেবিল চামচ, শাহী জিরা আধা চা চামচ, স্টার অ্যানিসড একটি, কাঁচামরিচ পাঁচ+আটটি, জর্দা রং আধা চা চামচ, কেওড়া+গোলাপজল দুই টেবিল চামচ, ঘি এক কাপ, তেল আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো।
যেভাবে করবেন : পৌনে এক কেজি চালের পোলাও রান্না করে নিন। এবার বড় সসপ্যানে অর্ধেক ঘি দিয়ে ভাত তিন ভাগ করে একভাগ দিয়ে দিন। মাংস দুই ভাগ করে এক ভাগ দিন একটু কেওড়া+গোলাপ জলের মিশ্রণ ছড়িয়ে দিন। পেঁয়াজ বেরেস্তা অবশিষ্ট গুঁড়া মশলা মেখে তিন ভাগ করে এক ভাগ মাংসের ওপর দিয়ে দিন। দুই-তিনটি কাঁচামরিচ দিন। এভাবে তিন ধাপে সাজিয়ে সবার ওপর বেরেস্তা, ঘি ও খাবার রং গুলে ছড়িয়ে দিন। ১০-১৫ মিনিট দমে রেখে ধনে পুদিনাপাতা দিয়ে গার্নিশ করে পরিবেশন করুণ। চাইলে ওপরে বাদাম কুচিও দিতে পারেন।
মালাই পুডিং
যা লাগবে : ডিম চারটি, চিনি আধা কাপ, গুঁড়াদুধ এক কাপ, এলাচ গুঁড়া আধা চা চামচ, দুধ এক লিটার, মাওয়া আধা কাপ, চিনি কোয়ার্টার কাপ, মালাই আধা কাপ, পেস্তাবাদাম কুচি এক টেবিল চামচ।
যেভাবে করবেন : ডিম আধা কাপ, চিনি এক কাপ, গুঁড়াদুধ এলাচ গুঁড়া ব্লেন্ড করুন। মোল্ডে চিনির ক্যারামেল করে ডিমের মিশ্রণ ঢেলে দিন। ১৬০হ্ন তাপে ৪০ মিনিট বেক করে নিন অথবা ভাঁপে পুডিং তৈরি করে নিন। পুডিং ঠাণ্ডা হলে বরফি কেটে নিন। এক লিটার দুধ জ্বাল দিয়ে আধা লিটার করুন, চিনি দিয়ে আবার জ্বাল দিন। মাওয়া ও মালাই দিয়ে জ্বাল দিয়ে ঘন করুন। পরিবেশন পাত্রে পুডিং রেখে ওপরে ঘন দুধ ঢেলে দিন। বাদাম কুচি সাজিয়ে পরিবেশন করুন।
বিফ মাসালা
যা লাগবে : গরুর মাংস এক কেজি, আদা বাটা দুই টেবিল চামচ, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ, বেরেস্তা বাটা দুই টেবিল চামচ, টমেটো পেস্ট এক কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, (রুচি অনুযায়ী), ধনে গুঁড়া দুই চা চামচ, জিরা গুঁড়া দুই চা চামচ, পোস্তাদানা বাটা এক টেবিল চামচ, গরম মশলা গুঁড়া এক চা চামচ, লবণ স্বাদমতো (দেড় চা চামচ) চিনি এক চা চামচ, তেল আধা কাপ, দুধ আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি চার ভাগের এক কাপ, ক্রিম চার ভাগের এক কাপ, আস্ত এলাচ তিনটি, দারুচিনি দুই ইঞ্চি, তেজপাতা দুই-তিনটি। গরম পানি তিন কাপ।
যেভাবে করবেন : মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। গরম মশলার গুঁড়া ছাড়া সব গুঁড়া মশলা পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করে রাখুন। কড়াইতে তেল দিয়ে গরম হলে আস্ত এলাচ, দারুচিনি ও তেজপাতা দিন। এবার পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজুন। পেঁয়াজ নরম হলে পোস্তা বাটা ছাড়া সব বাটা মশলা দিয়ে কষাণ। লবণ দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে মাংস ঢেলে দিন। মাংস ভালো করে নেড়ে ঢেকে দিন। মাংসের পানি টেনে কষা কষা হলে দুই কাপ গরম পানি দিয়ে আবার ঢেকে দিন। মাংস সিদ্ধ হয়ে ভুনা ভুনা হলে দুধে পোস্ত বাটা, বেরেস্তা বাটা ও গরম মশলা গুঁড়া মিশিয়ে মাংসে ঢেলে ভালো করে নাড়–ন। এবার ক্রিম ও চিনি ঢেলে দিয়ে নেড়ে ১৫-২০ মিনিট খুব কম আঁচে দমে রাখুন। ক্রিম ও পেস্তা কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন পোলাও রুটি বা পরোটার সঙ্গে।
রেসিপি দিয়েছেন : আফরোজা খানম মুক্তা , আলোকচিত্রী : মনির আহমেদ
ইলিশ পোলাও
যা লাগবে : ইলিশ মাছ একটি, আদা ও রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, হলুদ, মরিচ, ধনে গুঁড়া এক চা চামচ করে, পেঁয়াজ বাটা দুই টেবিল চামচ, টকদই দুই টেবিল চামচ, বাটারওয়েল আধা কাপ, এলাচ ও দারুচিনি তিন-চার পিস করে, কাঁচামরিচ ফালি সাত-আটটি, লবণ স্বাদমতো, চাল এক কেজি, পানি দেড় লিটার।
যেভাবে করবেন : সাদা তেলে পেঁয়াজ বেরেস্তা করে তা তুলে নিয়ে সেই তেলে আদা, রসুন, হলুদ, মরিচ, ধনে, টকদই, পেঁয়াজ বাটা, লবণ দিয়ে একটু কষিয়ে তার ভেতর মাছগুলো দিয়ে তিন-চার মিনিট রান্না করে রিং পিস করা ইলিশ মাছ উঠিয়ে রাখতে হবে। পরে সেই তেলে এলাচ ও দারুচিনি দিয়ে আবারও সামান্য লবণ দিয়ে পানি দেড় লিটার দিয়ে ফুটে উঠলে ধুয়ে রাখা চাল দিয়ে ফুটে ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। পরে চুলায় তাপমাত্রা মিডিয়াম করে নিয়ে তাওয়া দিয়ে ঢাকনাসহ রান্না করতে হবে। প্রায় ১৫-২০ মিনিট শেষে ইলিশ মাছ, কাঁচামরিচ দিয়ে ইচ্ছা হলে সামান্য ঘি দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে। বেরেস্তা দিয়ে পরিবেশন করতে হবে ইলিশ পোলাও।
বিফ উইথ চিলি
যা লাগবে : গরুর মাংস আধা কেজি, সাদা তেল এক কাপের তিনের এক অংশ, আদা ও রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, জিরা বাটা এক চা চামচ, ভাঁজে খোলা পেঁয়াজ দুই কাপ, সিরকা দুই টেবিল চামচ, টেস্টি সল্ট ও চিনি এক চা চামচ করে, সয়াসস দুই টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, গোলমরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, পাকা ও কাঁচামরিচ ১০-১২টি, কর্নফ্লাওয়ার দুই টেবিল চামচ, পানি (গোলানোর) এক কাপ।
যেভাবে করবেন : মাংস লম্বা পাতলা স্লাইজ কাটা আধা চা চামচ, লবণ ও দুই কাপ পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিতে হবে। কড়াইতে তেল দিয়ে আদা ও রসুন জিরা দিয়ে দুই-তিন মিনিট কষাতে হবে। পরে মাংস দিয়ে আবার কষাতে হবে। যেন মাংসটা সিদ্ধ হয়ে যায়। পরে ভাঁজ খোলা পেঁয়াজ, সিরকা, টেস্টি সল্ট ও চিনি, সয়াসস, লবণ, গোলমরিচ গুঁড়া, কাঁচামরিচ ফালি দিতে হবে। কর্নফ্লাওয়ার গোলানো দিয়ে নাড়াচাড়া করে নামাতে হবে। তৈরি হয়ে গেল বিফ উইফ চিলি।
গ্লাস ফ্রুটস ট্রায়ফল
যেভাবে করবেন : পানি দুই কাপ, গুঁড়াদুধ দেড় কাপ, চিনি এক কাপ, ডিমের কুসুম দুইটি, কর্নফ্লাওয়ার দুই টেবিল চামচ, ভ্যানিলা আধা চা চামচ।
যেভাবে করবেন : ওপরের সব উপকরণ একসঙ্গে বিট করে সসপ্যানে ঢেলে জ্বাল দিয়ে ঠাণ্ডা করতে হবে।
২নং : ডিমের সাদা অংশ দুইটি, আইসিং সুগার এক টেবিল চামচ, ফ্রেশ ক্রিম একটিন।
যেভাবে করবেন : ডিমের সাদা অংশ মেরাং করে চিনি দিয়ে আবার বিট করে ডানো ক্রিম একটিন এবং ১নং গ্রুপের মিশ্রণ মেশাতে হবে।
৩নং : কলা, আপেল, আঙ্গুর বা লিচু, জেলি কিউব।
যেভাবে করবেন : সব ফল ছোট কিউব/ব্রুনাইস স্লাইজ করে কেটে নিতে হবে।
৪নং : ময়দা এক কাপ, গুঁড়াদুধ দুই টেবিল চামচ, বেকিং এক চা চামচ, ডিম চারটি, চিনি এক কাপ, তেল এক কাপ, ভ্যানিলা আধা চা চামচ, পানি চার ভাগের এক কাপ, সব বিশ্রণ একসঙ্গে পেস্ট করে মাইক্রো ওভেন ১০০% হাই পাওয়ারে সাত-আট মিনিট রান্না করতে হবে। এরপর তৈরি হল স্পঞ্জ কেক।
৫নং : কেকটি কয়েক পার্ট করে নিতে হবে। একটি গ্লাসে প্রথমে কেক দিয়ে পরে কাস্টার্ডের মিশ্রণ দিয়ে ওপরে ফলের মিশ্রণ দিতে হবে। তারপর ইচ্ছা হলে আরেকটি পার্ট করা যাবে। নিজের পছন্দ অনুযায়ী ডেকোরেশন করে নরমাল ফ্রিজে রাখতে হবে। তৈরি হয়ে গেল গ্লাস ফ্রুটস ট্রায়ফেল।

0 comments:

Post a Comment