Last update
Loading...

চার জেলায় সড়ক যোগাযোগ ব্যাহত

প্রবল বর্ষণে চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানে পাহাড় ধসের ঘটনায় মৃত্যুর মিছিল আরও বড় হচ্ছে। বুধবার সকাল ১১টা পর্যন্ত ১৩৭ জনের নিহতের খবর পাওয়া গেছে। এদিকে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস ও বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান। উদ্ধার অভিযানে থাকা সংশ্লিষ্টরা বলছে, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তারা জানায়, উদ্ধার অভিযান যত এগুচ্ছে নিহতদের সংখ্যাও বাড়ছে। ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় থেকে ওই তিনটি জেলায় ১৮টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেখানে খাবার ও ওষুধসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি সরবরাহ করছে জেলা প্রশাসন। এদিকে পাহাড় ধসের ঘটনায় চট্টগ্রামের সঙ্গে রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও কক্সবাজারের সড়ক যোগাযোগ সোমবার থেকে ব্যাহত হচ্ছে।
বিশেষ করে রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের সঙ্গে চট্টগ্রামের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এছাড়া বান্দরবান, রাঙ্গামাটি এবং চট্টগ্রামের অধিকাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। সাগরে নিম্নচাপের কারণে গত রোববার থেকে চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রামের জেলাগুলোতে টানা ভারি বর্ষণ হয়। এর ফলে মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টার পর চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের বেশ কয়েকটি এলাকায় পাহাড় ধসে ব্যাপক হতাহতের ঘটনা ঘটে। পাহাড় ধসে খবর পেয়ে ওইসব এলাকায় উদ্ধার অভিযানে নামে সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দলসহ বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান। আজ বুধবারও উদ্ধার কাজ অব্যাহত রেখেছে ওইসব প্রতিষ্ঠান। এদিকে মঙ্গলবার রাঙ্গামাটির মানিকছড়িতে উদ্ধার অভিযানে গিয়ে সেনাবাহিনীর দুই কর্মকর্তাসহ চারজন সদস্য নিহত হয়েছেন। নিখোঁজ রয়েছেন একজন। এখন পর্যন্ত পাহাড় ধসে রাঙ্গামাটিতে ১০১, চট্টগ্রামে ২৭, বান্দরবানে ৬ ও খাগড়াছড়িতে ১ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

0 comments:

Post a Comment