Last update
Loading...

একচক্ষু ছাগলছানাকে নিয়ে গ্রামে হুলস্থুল

আসামের এক গণ্ডগ্রামে একচক্ষু ছাগলকে নিয়ে হুলস্থুল কাণ্ড কয়েকদিন ধরে। গ্রিক কিব হোমারের মহাকাব্য ওডিসিতে এমন একচক্ষুর দৈত্যর বর্ণনা ছিল। কিন্তু কাল্পনিক কথা নয়, একচক্ষু প্রাণী যে বাস্তবেও আছে তারই প্রমাণ এই ছাগলছানা। মাত্র এক সপ্তাহ বয়স, তাতেই গোটা গ্রামের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু সে। লোকমুখে তার বর্ণনা শুনে দূর-দূরান্ত থেকেও লোকজন আসতে শুরু করেছে ছাগলছানাকে দেখার জন্য। অধিকাংশ মানুষই তাকে ঐশ্বরিক ভেবে তার পূজার্চনা শুরু করেছেন। শুধু একটা চোখই নয়, ওই ছাগলছানার কানও একটা। যদিও পশু চিকিৎসকদের মতে, এমন অন্ধ ছাগলের আয়ু বেশি দিন হওয়ার কথা নয়। কিন্তু তাদেরও অবাক করে দিব্যি ছুটে-খেলে বেড়াচ্ছে ওই ছাগলছানা। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, ওই ছাগলছানা সাইক্লোপিয়ায় আক্রান্ত।
এর ফলে ছাগলের গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের মস্তিষ্কের ডান-বাম দুই অর্ধ আলাদা হয় না। যার ফলে ছাগলছানা এক চোখ, কান নিয়েই জন্মেছে। চোখের মণিও একটাই। চোখের পাতা এবং নাকও ঠিকঠাক নেই ওই ছাগলছানার। উপর এবং নিচের ঠোঁট থাকলেও সেটা আকারে অনেক ছোট। উপরের দিকের চোয়াল ছোট এবং কোনো দাঁত নেই ওই ছাগলছানার। কিন্তু এসব কথা কানে তুলছেন না গ্রামবাসীর। তাদের কাছে ওই ছাগলছানা সাক্ষাৎ ঈশ্বরের অংশ! দৈবিক ভেবে তাকে পূজার্চনাও শুরু হয়েছে। অদ্ভূতদর্শন ছাগলছানার মালিক মুখুরি দাস জানিয়েছেন, তিনি খুবই চমকে গিয়েছিলেন ছানাটিকে দেখে। ঐশ্বরিক ভেবে লোকজন তার বাড়িতে আসতে শুরু করেছেন ওই ছানাকে দেখতে। তার পরই পশু চিকিৎসকদের বাড়িতে ডেকে ছানাটিকে পরীক্ষা করান তিনি।

0 comments:

Post a Comment