Last update
Loading...

মধ্যপ্রাচ্যে শান্তির জন্য ‘সবকিছু’ করবেন ট্রাম্প

ইসরাইল সফররত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনিদের সহায়তায় ‘সবকিছু করবেন’ তিনি। এ সময় সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় ফিলিস্তিনি নেতার প্রতিশ্রুতিতেও সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। ইসরাইল সফরের শেষ দিনে মঙ্গলবার বেথলেহেমে বৈঠকে বসেন এই দুই নেতা। একই দিন জেরুজালেম সফর করেন ট্রাম্প। বিবিসি জানায়, ট্রাম্পের ইসরাইল সফরকে কেন্দ্র করে ব্যাপক বিক্ষোভ করেছেন ফিলিস্তিনিরা। ট্রাম্পকে ইসরাইলপন্থী বিবেচনা করে গাজা ও পশ্চিম তীরে বিক্ষোভ দেখান তারা। ট্রাম্প বলেছেন, ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে একটি শান্তি চুক্তি অর্জনে আমি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আর এ লক্ষ্য অর্জনে উভয়পক্ষকে সহায়তা করতে আগ্রহী। একটি দীর্ঘস্থায়ী শান্তির জন্য এ দুই দেশের নেতাদের সঙ্গে কাজ করতে চাই। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট আব্বাস তাকে নিশ্চিত করেছেন, এ লক্ষ্যে বিশ্বাসের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত তিনি। প্রেসিডেন্ট আব্বাস বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ‘মহৎ ও সম্ভাব্য এ মিশন’কে স্বাগত জানান তিনি এবং শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ট্রাম্পের অংশীদার হতে প্রস্তুত তিনি। সর্বশেষ গত ৩ মে ওয়াশিংটন সফর করেন মাহমুদ আব্বাস। এ সময় হোয়াইট হাউসে বৈঠকে বসেন এই দুই নেতা। ওই বৈঠকেও মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা বিশেষ করে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন তারা। গত তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে সরাসরি কোনো আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়নি।
হামাসের নিন্দা : ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস বলেছে, ইহুদিবাদী ইসরাইলের পক্ষে কথা বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফিলিস্তিনের মুক্তি আন্দোলনকে আরও জোরদার করছেন। এর ফলে সংগঠন হিসেবে হামাস আরও শক্তিশালী হবে বলেও মন্তব্য করেছে হামাস কর্তৃপক্ষ। রোববার সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে আরব ও মুসলিম নেতাদের উপস্থিতিতে ট্রাম্প হামাসকে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন বলে অভিহিত করেছেন এবং একে উগ্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসের সঙ্গে তুলনা করেছেন। পাশাপাশি তিনি হামাসের ‘ইসলামী সন্ত্রাসের’ বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য মুসলিম নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। হামাস মুখপাত্র ফাউজি বারহুম সোমবার এক বিবৃতিতে ট্রাম্পের এ বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘হামাসকে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন বলে ট্রাম্প যে মন্তব্য করেছেন আমরা তা প্রত্যাখ্যান করছি।’ হামাস নেতা মুশরি আল-মাসরিও ট্রাম্পের উস্কানিমূলক বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে নিজেকে দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলের কাতারে নিয়ে গেছেন।

0 comments:

Post a Comment