Last update
Loading...

মোনাকোকে কাঁদিয়ে ফাইনালে জুভেন্টাস

মোনাকোকে কাঁদিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে উঠে গেছে জুভেন্টাস। সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে তারা ২-১ গোলের জয় পেয়েছে। প্রথম লেগে মোনাকোর ঘরের মাঠে ২-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছিল মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রির শিষ্যরা। মঙ্গলবার রাতে দ্বিতীয় লেগে এক অসাধ্য সাধনের আশায় তুরিনো এসেছিল মোনাকো। কিন্তু ঘরের মাঠেও আধিপত্য অব্যাহত রাখে হিগুয়েন-দিবালারা। খেলার ৩৩ মিনিটে ক্রোয়েশিয়ার ফরোয়ার্ড মারিও মানজুকির গোলে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। মোনাকোর কর্নারের বল ধরে সান্দ্রো এবং দিবালা ঘুরে বল আসে দানি আলভেজের কাছে। ডানপ্রান্ত দিয়ে ক্ষীপ্রতায় ব্রাজিলীয় এই ডিফেন্ডার পেনাল্টি এরিয়ায় বল বাড়ান, যেটিতে মাথা ছুঁয়ে লক্ষ্যভেদ করেন মারিও মানজুকি। এরপর প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে নিজেই ব্যবধান বাড়ান আলভেজ। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড দিবালার সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান খেলে তিনি মোনাকোর রক্ষণে ঢুকে পড়েন। এরপর পোস্টে নেয়া শট গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলে ২৫ গজ দূর থেকে নেয়া ফিরতি জোরালো শটে বল জালে জড়ান আলভেজ। এই গোলের পরই মূলত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় মোনাকো। কারণ এখান থেকে ম্যাচে ফিরতে হলে তাদের দরকার ছিল ৫ গোল। সেটি আর হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধে হিগুয়েনরা সফরকারীদের আরও চেপে ধরে। তবে পাল্টা আক্রমণ থেকে ৬৯ মিনিটে মোনাকোর পক্ষে সান্ত্বনার একটি গোল পরিশোধ করেন ফ্রান্সের ফরোয়ার্ড ক্যালিয়ান ম্যাপপি লোতিন। পর্তুগালের মিড-ফিল্ডার মাওটিনহোর নিখুঁত কর্নার জুভেন্টাসের রক্ষণে ফাঁকায় থাকা লোতিনকে খুঁজে নিলে ব্যবধান হয় ২-১। এরপর অবশ্য মোনাকো মরিয়া হয়েও গোলের দেখা পায়নি। কালো পোশাকে খেলতে নামা প্রতীকী কষ্ট নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। আর দুই লেগ মিলে ৪-১ গোলের জয়ে ফাইনালে উঠে জুভেন্টাস। বুধবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের মধ্যকার বিজয়ী দলের বিপক্ষে কার্ডিফে শিরোপা লড়াই করতে হবে বুফনের নেতৃত্বাধীন জুভেন্টাসকে।

0 comments:

Post a Comment