Last update
Loading...

চোখের রঙ দেখে চেনা যায় চরিত্র

'চোখ যে মনের কথা বলে' বা 'চোখ হল মনের আয়না'- এমন কথা বা গান আমরা সবাই শুনেছি। কিন্তু চোখের মণির রঙ দেখে যে কোনও মানুষের চরিত্র সম্পর্কে জানা যায় সেটি কি জানেন? এটা শুনে নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন! গবেষকরা মনে করেন, মুখের ভাষা যেমন মনের কথাকে সামনে নিয়ে আসে। তেমনি চোখের ভাষা মানুষের ভেতরের ছবিকে আমাদের সামনে তুলে ধরে। প্রতিটি মানুষেরই মণির রঙ ভিন্ন ভিন্ন হয়। কারও হয় বাদামী, তো কারও নীলাভ। সবুজ, রূপালী, এমনকী ধূসর রঙের মণিও চোখে পড়ে। আর এই মণির রঙকেই বিশ্লেষণ করে মানুষের ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে অনেক অজানা কথা জেনে নেয়া যায়। কারণ আজকের দুনিয়ায় লোক চেনা খুবই কঠিন কাজ। সবাই যেন মুখোশ পরে রয়েছে। কারও আসল চেহারা দেখা যায় না। চোখের মনির রঙ দেখে মানুষ চেনার এই পদ্ধতিটিকে আধুনিক বিজ্ঞানও মেনে নিয়েছে। সম্প্রতি সুইডেনের ওরেব্রো ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানিরা ৪২৮ জনের ওপর এক অভিনব পরীক্ষা চালিয়েছেন।  তারা দেখতে চেয়েছিলেন মণির রঙের ওপর মানুষের চরিত্র নির্ভর করে কিনা। এ গবেষণায় দেখা গেছে শুধু মণির রঙ নয়, চোখের গঠনের সঙ্গেও মানুষের চরিত্রের সরাসরি যোগ রয়েছে। আসলে আমাদের মস্তিষ্কের একেবারে সামনের অংশ, যাকে ফ্রন্টাল লোব বলা হয় তা আমাদের চরিত্র কেমন হবে, সে বিষয়ে সব সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। আর ব্রেনের এই অংশের সঙ্গে চোখের মণির সরাসরি যোগ রয়েছে। তাই তো বিজ্ঞানীরা মেনে নিয়েছেন চোখের মণির রঙের ওপর আমাদের চরিত্র অনেকাংশেই নির্ভর করে। তাহলে আর অপেক্ষা কেন, কীভাবে চোখর মণি মনের কথা বলে আসুন জেনে নিই-
বাদামী রঙের চোখ: চোখের রং এমন হলে বুঝতে হবে তিনি অত্যন্ত সৎ একজন মানুষ। মণির রং যাদের এমন, তারা নিজের দায়িত্ব সম্পর্কে বেশ সচেতন হন। তাই তো এমন মানুষদের সবাই বিশ্বাসযোগ্য বন্ধু ভাবেন, সহজে বিশ্বাস করেন। এরা সেই বিশ্বাসের মর্যাদাও দেন। চারিত্রিক দিক থেকে এমন চোখের অধিকারীরা একই সঙ্গে বেশ মজার এবং চিন্তাশীল হন। তাই তো এদের ভাবনা বাকি দশজনের তুলনায় একেবারে আলাদা হয়ে থাকে।
নীলাভ রঙের চোখ: এমন মানুষ অনেক উচ্চাভিলাষী এবং জেদি হন। নিজেকে প্রতিনিয়ত উন্নতির শিখরে নিয়ে যাবার জন্য এরা কঠোর পরিশ্রম করেন। তাই তো এমন মানুষেরা তাদের জীবনে আজ না হলেও কাল সফল হনই। কিন্তু অনেকে এদের গম্ভীর বা রাগি ভেবে বেশি মেলামেশা করতে চান না। শুধু তাই নয়, অনেকে তাদের স্বার্থপরও ভাবেন। তবে এরা কাউকে ভালোবাসলে প্রাণ দিয়ে ভালোবাসেন। এমনকি সব ভুল মাফ করেও ভালবাসতে রাজি থাকেন।
সবুজ রঙের চোখ : এরা খুব আত্মকেন্দ্রিক হন। নিজের থেকে বেশি কিছু ভাবতেই পারেন না। তাই তো সব সময় নিজের চিন্তা এবং তত্ত্বকে সবার সেরা বলে বিবেচিত করার ভুল কাজটা করে থাকেন। শুধু তাই নয়, এমন চোখের অধিকারীরা নিজেদের ভাবনা নিয়েই দিনের বেশিরভাগ সময় পার করে দেন। তবে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে এমন মানুষদের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তাই তো এদের বেশ স্মার্ট এবং চিন্তাশীল মানুষ বলে বিবেচিত করে থাকেন বাকিরা।
চোখের রং রূপালী: এরা হাসিখুশি ও উদ্বেগহীন মানুষ হয়। তাই তো সবার কাছেই প্রিয়পাত্র হয়ে ওঠেন। এমন মানুষেরা বিশ্বাস করেন, কারও ভালো করলে নিজেরও ভালো হয়। এরা খুব ভালো শ্রোতা হয়ে থাকেন। এরা সব ধরনের দুশ্চিন্তাকে ঝেড়ে ফেলে কীভাবে সমস্যার সমাধান করা যায়, সে বিষয়ে প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালাতে থাকেন। তাই তো এদের মনকে কখনই কোনও চিন্তা বা উদ্বেগ স্পর্শ করতে পারে না।
কালো ও ধূসর রঙের চোখ: পুরোপুরি দর্শন তত্ত্বে বিশ্বাসী একজন মানুষ হন তারা। বেশ আবেগ প্রবণও হয়ে থাকেন। এদের চিন্তাভাবনা তার বন্ধু-বান্ধব এবং অন্য সবার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা হয়। তাই তো যে কোনও ধরনের ঘটনা ঘটার আগেই তারা সে সম্পর্কে আঁচ করে ফেলতে পারেন। এত কিছুর পরেও মানুষ আপনাকে ভুল বুঝে দূরে চলে যায়।
হলদে তামাটে রঙের চোখ: এরা আত্মনির্ভরশীলতা এবং স্বাধীনতা অনেক বেশি পছন্দ করেন। শুধু তাই নয়, এরা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে ভালবাসেন। অনেক ক্ষেত্রেই ভাবেন, ‘সব কিছু আমার মতো করে হতে হবে'। তারা এজন্য প্রিয়জনদের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। এমন মানুষদের অনেক ভালো দিকও রয়েছে। যেমন, যারা এদের কথা মেনে চলেন, তাদের জন্য যে কোনও মাত্রায় গিয়ে কষ্ট করতে রাজি থাকেন এরা।

0 comments:

Post a Comment