Last update
Loading...

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজটে গণ-ডাকাতি

যাত্রীবাহী বাস ও পিকআপ ভ্যানে গণ ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ডাকাত দল যাত্রী ও চালকদের অস্্েরর মুখে জিম্মি ও মারপিট করে বিভিন্ন বাস, ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান থেকে নগদ টাকাসহ প্রায় ৯ লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয় বলে জানা গেছে। মহাসড়কে তীব্র যানজটের কারনে সংঘ বদ্ধ ডাকাত দল যাত্রীবাহী বাস, মালবাহী ট্রাক ও পিকআপ ব্যানে হানা দিয়ে এই গণ ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে বলে যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা অভিযোগ করেছে। গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার পাকুল্যার আছিমতলা, জামুর্কি, নাটিয়াপাড়া, মির্জাপুর বাইপাস, বাওয়ার কুমারজানি, শুভুল্যা, ধেরুয়া ও হাটুভাঙ্গা এলাকায় এ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতির সময় যাত্রী, চালক, পরিবহন শ্রমিক ও স্থানীয় লোকজন এক ডাকাতকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তার নাম মো. আনোয়ার হোসেন(৩০) বলে জানা গেছে।
আজ বৃহস্পতিবার কয়েকজন বাস ও ট্রাক চালক অভিযোগ করেন, গতকাল বুধবার রাতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা থেকে নাটিয়াপাড়া পর্যন্ত তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। ট্রাফিক পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও থানা পুলিশের নজরদারী কম থাকায় সংঘ বদ্ধ ডাকাত দলের সদস্যরা কয়েকটি মোটর সাইকেল নিয়ে নাটিয়াপাড়া থেকে হাটুভাঙ্গা পর্যন্ত এই গণ ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে।ডাকাতরা বাস, ট্রাক ও পিকআপব্যানে হানা দিয়ে টচালক ও যাত্রীদের মারপিট করে টাকা ও মালামাল লুটে নেয় বলে জানা গেছে। ডাকাত দলের সদস্যরা মির্জাপুর বাইপাস ও কুমারজানি এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ ব্যানে হানা দিলে চালকরা বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে ছুটে এসে এক ডাকাতকে ধরে গণ পিটুনি দেয়।পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। তার নাম আনোয়ার হোসেন বলে পুলিশকে জানিয়েছে। তাদের গ্রুপে ৩০-৪০ জন ডাকাত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক, ঢাকা-মানিকগঞ্জ রোড, ঢাকা-ময়মনসিংহ রোড, ঢাকা-সিলেট রোড ও ঢাকা- চট্রগ্রাম রোডে যানবাহনে ডাকাতি করে আসছে বলে আটককৃত আনোয়ার পুলিশকে জানিয়েছে। এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ডিউটি অফিসার মো. আতাউর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আনোয়ার নামে এক ডাকাতকে আটক করা হয়েছে । পালিয়ে যাওয়া ডাকাতদের গ্রেফতারে মাঠে নেমেছে পুলিশ। কোন টাকা ও মালামাল উদ্ধার হয়নি । থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

0 comments:

Post a Comment